বিশেষ খবর

মেডিকেল ও ডেন্টাল ভর্তিতে অনিয়ম দুর্নীতির লাগাম টানতে কমিটি

ক্যাম্পাস ডেস্ক মেডিকেল কলেজ
img

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত চট্টগ্রাম, কুমিল্লা ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ১০টি বেসরকারি মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজে শিক্ষার্থী ভর্তি ঘিরে অনিয়ম ও দুর্নীতির বিষয়টি আদালত পর্যন্ত গড়িয়েছে। এ অবস্থায় এমবিবিএস ও বিডিএস কোর্সে ভর্তির ক্ষেত্রে যাতে আর এমন কান্ড না ঘটে সে জন্য ভর্তি কমিটি করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।
বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যকে সভাপতি করে গঠিত এ ভর্তি কমিটির মাধ্যমে বেসরকারি মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজগুলোয় শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। এতে অনিয়ম-দুর্নীতি রোধের পাশাপাশি ভর্তিতে স্বচ্ছতা ও শৃঙ্খলা ফিরে আসবে বলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা মনে করছেন।
এ ব্যাপারে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজগুলো পরিচালনার নীতিমালা পর্যালোচনা কমিটির সদস্যসচিব এ কে এম মাহফুজুল হক বলেন, আগে কলেজগুলোই এমবিবিএস ও বিডিএস কোর্সের প্রথমবর্ষে শিক্ষার্থী ভর্তি কার্যক্রম চালিয়ে আসছিল। এতে বিভিন্ন কলেজে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মনীতি না মানার অভিযোগও উঠেছে। এমনকি অকৃতকার্য হওয়া শিক্ষার্থীদের ভর্তি করানোর ঘটনাও ঘটেছে।
তিনি বলেন, ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষে পাঁচটি বেসরকারি মেডিকেল কলেজে উত্তীর্ণ না হওয়া ৯৬ জনকে (৪০ নম্বরের কম) ভর্তি করার ঘটনা ঘটেছে। এমন ঘটনা আর যাতে ঘটতে না পারে সে জন্য ভর্তি কমিটি করা হয়েছে। এর আগে ভর্তি কমিটি নিয়ে যে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিল তা কলেজগুলো মানেনি।
জানা যায়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে একটি পর্যালোচনা সভা হয়। বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত মেডিকেল কলেজ, ডেন্টাল কলেজ, নার্সিং কলেজ ও ইনস্টিটিউটগুলো সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার স্বার্থে বিশ্ববিদ্যালয়ের নীতিমালার সঙ্গে সম্পর্কিত অন্য নীতিমালার সামঞ্জস্য বিধানের জন্য এই সভা হয়। ওই সভায় চলতি ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষে বেসরকারি মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজে ভর্তি কমিটি করা হয়। ছয় সদস্যের এই কমিটির সভাপতি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য। সদস্যসচিব সংশ্লিষ্ট বেসরকারি কলেজের অধ্যক্ষ। অন্য চার সদস্য হলেন সংশ্লিষ্ট কলেজের গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান বা ভাইস চেয়ারম্যান, চিকিৎসা অনুষদের ডিন, বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ও কলেজ পরিদর্শক।
প্রথমবারের মতো ভর্তি কমিটি গঠনের পর সম্প্রতি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত ১০টি বেসরকারি মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষের সঙ্গে মতবিনিময় করেন উপাচার্য ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী। ওই বৈঠকে চলতি শিক্ষাবর্ষ থেকে ভর্তি কমিটিই শিক্ষার্থী ভর্তির কার্যক্রম পরিচালনা করবে বলে জানানো হয়। এই কমিটিতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বা বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলের (বিএমডিসি) সদস্য অন্তর্ভুক্ত করা হতে পারে বলে নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা যায়।
জানতে চাইলে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডাঃ সেলিম মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর বলেন, বেসরকারি মেডিকেল স্থাপন ও পরিচালনা নীতিমালার ২০১১ (সংশোধিত) আলোকে ভর্তি কমিটি করা হয়েছে। এই কমিটির মাধ্যমেই বেসরকারি মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজগুলোয় চলতি শিক্ষাবর্ষ থেকে ভর্তি কার্যক্রম চলবে।


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ