বিশেষ খবর

জাতীয় প্রেসক্লাব নির্বাচনে শফিক-ফরিদা প্যানেলের নিরঙ্কুশ বিজয়

ক্যাম্পাস ডেস্ক শিক্ষা সংবাদ

জাতীয় প্রেসক্লাব নির্বাচনে মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের শফিক-ফরিদা প্যানেলের মুহম্মদ শফিকুর রহমান সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক পদে ফরিদা ইয়াসমিন নির্বাচিত হয়েছেন। নির্বাচন পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান মোস্তাফা জব্বার সম্প্রতি নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করেন। আজিজ-গণি পরিষদের এক যুগ্ম-সাধারণ ও এক সদস্য এবং স্বতন্ত্র এক সদস্য প্রার্থী ছাড়া বাকি সব পদে শফিক-ফরিদা প্যানেল বিজয়ী হয়েছেন। এবার জাতীয় প্রেসক্লাবে মোট ভোটার ছিল এক হাজার ২১৮। এর মধ্যে এক হাজার ৮৮ ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। নির্বাচনে সভাপতি পদে শফিকুর রহমান ৬৭২ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী এমএ আজিজ পেয়েছেন ২৭৯ এবং খন্দকার মনিরুল আলম পেয়েছেন ১২০ ভোট। সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে সাইফুল আলম সর্বোচ্চ ৮০৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নুরুল আলম পেয়েছেন ১৮৩ ভোট, মুহম্মদ রুহুল কুদ্দুস ৬২ ভোট পেয়েছেন। নির্বাচনে সহ-সভাপতি পদে বাসস’র সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক এবং বর্তমানে বাংলাদেশের খবর ও দি বাংলাদেশ নিউজের সম্পাদক আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া ৫৭০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সদরুল হাসান পেয়েছেন ২৩৯ ভোট, আমিনুল ইসলাম ১৫৬ ও মোহাম্মদ মোকাররম ৪৪ ভোট পেয়েছেন। অপরদিকে সাধারণ সম্পাদক পদে ফরিদা ইয়াসমিন ৪৩৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কাদের গণি চৌধুরী ৩৫০ ভোট ও কামরুল ইসলাম ২৮২ ভোট পেয়েছেন। যুগ্ম সম্পাদক পদে শাহেদ চৌধুরী ৬২৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ইলিয়াস খান ৪৫২ ভোট, মোহাম্মদ আশরাফ আলী ৪৩৯, নাজমুল আহসান ২৪০, জহিরুল হক রাজা ৭৭ ও আবদুল গাফফার মাহমুদ ৭০ ভোট পেয়েছেন। কোষাধ্যক্ষ পদে কার্তিক চ্যাটার্জি ৪৭৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কাজী রওনাক হোসেন ৩৯২ ও সরদার ফরিদ আহমেদ ১৯৮ ভোট পেয়েছেন।


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ