বিশেষ খবর

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনে শিক্ষামন্ত্রী

ক্যাম্পাস ডেস্ক শিক্ষা সংবাদ
img

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি বলেছেন, নতুন প্রজন্মকে বিশ্বমানের শিক্ষা, জ্ঞান ও প্রযুক্তিতে দক্ষ মানবসম্পদ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। গাজীপুরের বোর্ড বাজারে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় মাঠে বিশ্ববিদ্যালয়টির ৪র্থ সমাবর্তন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
অনুষ্ঠানে সমাবর্তন বক্তা ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. এ কে আজাদ চৌধুরী। সমাবর্তনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এমএ মান্নান, প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর খন্দকার মোকাদ্দেম হোসেন, ট্রেজারার মোঃ আবু তাহের প্রমুখ। সমাবর্তনে আরও উপস্থিত ছিলেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. হারুন-অর-রশিদ, সাবেক সংসদ সদস্য কাজী মোজাম্মেল হকসহ বিভিন্ন সংস্থার কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। শিক্ষামন্ত্রী বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়কে একটি বৃহৎ বিশেষায়িত শিক্ষাকেন্দ্র উল্লেখ করে বলেন, এই বিশ্ববিদ্যালয়টি আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের ম্যাধমে উন্মুক্ত ও দূরশিক্ষণ পদ্ধতিতে শিক্ষার্থীদের দোর গোড়ায় শিক্ষা উপকরণ পৌঁছে দিচ্ছে। একইসাথে দেশব্যাপী এসএসসি থেকে পিএইচডি পর্যন্ত শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করে শিক্ষাক্ষেত্রে বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় একটি যুগান্তকারী অবদান রাখছে।
নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, আনুষ্ঠানিক শিক্ষা থেকে যারা বঞ্চিত বা কোনো পর্যায়ে শিক্ষা জীবন অব্যাহত রাখতে না পেরে ঝরে পড়েছেন, অথবা শিক্ষাসম্পন্ন না করে কোনো পেশায় নিয়োজিত হয়েছেন এসব শিক্ষার্থীর জন্য যে কোনো সময় যে কোনো পর্যায়ে শিক্ষা লাভ করার সুযোগ এই বিশ্ববিদ্যালয়ের এক অনন্য  বৈশিষ্ট্য।
শিক্ষামন্ত্রী আরো বলেন, আমাদের মনে রাখতে হবে, আমরা দেশ ও জনগণের কাছে দায়বদ্ধ। সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো পরিচালিত হয় জনগণের অর্থে। আমাদের সম্পদ কম। তাই সীমিত সম্পদের সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে।
তিনি সমাবর্তনে আগতদের উদ্দেশে বলেন, আজ আপনারা যারা এ সমাবর্তনে ডিগ্রি পেলেন তারা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ এর লক্ষ্য পূরণে তথ্যপ্রযুক্তির সমন্বয়ে একটি অর্থবহ প্রায়োগিক ব্যবস্থাপনা কৌশল প্রবর্তনে ভূমিকা রাখবেন।
সমাবর্তন বক্তা প্রফেসর ড. একে আজাদ চৌধুরী বলেন, উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় সর্বস্তরের জনগোষ্ঠীর জন্য দেশব্যাপী শিক্ষার সুবিধা সম্প্রসারিত করছে। প্রযুক্তিনির্ভর শিক্ষা ব্যবস্থার মাধ্যমে সমাজের সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীর নারী ও কর্মজীবী মানুষের কল্যাণে উন্মুক্ত বিশ্ববিদালয় স্বল্প ব্যয়ে শিক্ষার সুযোগ প্রদান করছে। বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে জ্ঞানের চর্চা, জ্ঞান ও দক্ষতার উদ্ভাবন এবং জ্ঞান বিতরণের কেন্দ্রবিন্দু। মানবজাতির কল্যাণে নিরন্তর জ্ঞান অনুশীলনিই একান্ত লক্ষ্য।                                        


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ