বিশেষ খবর

উচ্চশিক্ষার সার্বিক মানোন্নয়নে সরকার অঙ্গীকারবদ্ধ

-অর্থ প্রতিমন্ত্রী

ক্যাম্পাস ডেস্ক শিক্ষা সংবাদ
img

বাজেটের মাধ্যমেই রাজনৈতিক প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন হয়ে থাকে। সাধারণত কোনো সরকারের বাজেট বিশ্লেষণের মধ্যদিয়ে সে সরকারের চরিত্র নির্ধারিত হয়। প্রতিবছর বাজেটের একটা বিশাল অঙ্কের অর্থ অহেতুক অপচয় হচ্ছে। কল্যাণকর কাজে ব্যয় করার জন্য আমরা প্রচুর সম্পদ তৈরি করছি কিন্তু সেটা সঠিক জায়গায় ব্যবহার করতে পারছি না বলে অপচয় হচ্ছে।  সম্প্রতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবন মিলনায়তনে শিক্ষা বিষয়ক প্রাক বাজেট আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান এসব কথা বলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) সেন্টার অন বাজেট এ্যান্ড পলিসি আলোচনা অনুষ্ঠানটির আয়োজন করে।
বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক আলোচনা সভার উদ্বোধন করেন। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ ও সেন্টার অন বাজেট এ্যান্ড পলিসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোঃ কামালউদ্দীনের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ এবং নির্ধারিত আলোচক হিসেবে অংশগ্রহণ করেন সাংসদ কবি কাজী রোজী এবং বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজের (বিআইডিএস) সিনিয়র রিসার্চ ফেলো ড. নাজনীন আহমেদ প্রমুখ।
এ সময় অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, দেশের উচ্চশিক্ষার সার্বিক মানোন্নয়নে বর্তমান সরকার অঙ্গীকারবদ্ধ। সেই লক্ষ্যে সরকার যুগোপযোগী বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করে যাচ্ছে।
আলোচনা সভায় শিক্ষা বিষয়ক প্রাক বাজেট আলোচনায় বিভিন্ন সুপারিশ ও প্রস্তাবনা তুলে ধরেন সেন্টার অন বাজেট এ্যান্ড পলিসির পরিচালক অধ্যাপক ড. মোঃ আবু ইউসুফ। বর্তমান সরকারকে শিক্ষাবান্ধব সরকার উল্লেখ করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রণীত সুপারিশসমূহ সরকার গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করবে বলে মন্ত্রী আশ্বস্ত করেন। এছাড়া ঢাবি শিক্ষকদের জন্য পৃথক বেতন কাঠামো তৈরির বিষয়টি সরকারের দৃষ্টিতে আনবেন বলে উল্লেখ করেন প্রধান অতিথি।
অনুষ্ঠান উদ্বোধন করে ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, উচ্চশিক্ষার গুণগত মান বৃদ্ধি এবং শিক্ষা বিষয়ক গবেষণায় গত বছরের তুলনায় আগামী বাজেটে বরাদ্দের পরিমাণ বৃদ্ধি করতে হবে। 


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ