বিশেষ খবর

ঢাবি শোক দিবস শিক্ষা দেয় ‘দুর্যোগ সর্তকতার বিকল্প নেই’ -ঢাবি উপাচার্য

ক্যাম্পাস ডেস্ক সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়
img

ভাবগম্ভীর পরিবেশে ১৫ অক্টোবর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। ১৯৮৫ সালের ১৫ অক্টোবর রাতে জগন্নাথ হলে সংঘটিত মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় যে সকল ছাত্র, কর্মচারী ও অতিথি নিহত হয়েছেন তাঁদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য প্রতি বছর দিবসটি পালন করা হয়।
এ উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল হল ও প্রধান প্রধান ভবনে কালো পতাকা উত্তোলন, বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা অর্ধনমিত রাখা ও কালো ব্যাজ ধারণ করা হয়। শ্রদ্ধাঞ্জলি, পুষ্পস্তবক অর্পণ ও নীরবতা পালন শেষে জগন্নাথ হল অক্টোবর স্মৃতিভবনস্থ টিভি কক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সভায় আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. সহিদ আকতার হুসাইন, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মোঃ কামাল উদ্দীন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই এসোসিয়েশনের সভাপতি রকীব উদ্দীন আহমেদ, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সমিতির সভাপতিবৃন্দ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে দুর্ঘটনার সময়ে আহত ছাত্র উপ-রেজিস্ট্রার প্রবীর কুমার সরকার, হলের ছাত্রদের পক্ষ থেকে সঞ্জীব বিশ্বাস প্রমুখ। আলোচনা সভা সঞ্চালন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার সৈয়দ রেজাউর রহমান।
সভাপতির বক্তব্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, এই ১৫ অক্টোবর যেন আমরা বিস্মৃত না হই। এই শোক দিবস আমাদের দায়িত্বশীলতা, কর্তব্যপরায়ণতা, উদারতা এবং মানবিকতার তাগিদ দিয়ে যায়, সচেতনতা সৃষ্টির কথা স্মরণ করিয়ে দেয়। এই দিবসের তাৎপর্য আমাদের কাছে অত্যন্ত কার্যকর, ১৫ই অক্টোবর এই শোক দিবস শিক্ষা দেয় দুর্যোগ সতর্কতার কোনো বিকল্প নেই।


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ