বিশেষ খবর

বেসরকারি স্কুলেও ভর্তিতে ৪০ ভাগ এলাকা কোটা

ক্যাম্পাস ডেস্ক সংবাদ

কেবল সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় নয়, বেসরকারি স্কুলেও প্রথম শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তিতে ৪০ শতাংশ এলাকা কোটা রাখা হচ্ছে। এ জন্য ৭ নভেম্বরের মধ্যে নির্দিষ্ট শিক্ষা অঞ্চলের ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীর মোট সংখ্যা নিরূপণ করা হবে। এর আগে কেবল সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোতে এ কোটা চালুর সিদ্ধান্ত হয়েছিল। এ ছাড়া এ বছর প্রথম শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন ফরমের মূল্য ২শ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।
শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী ভর্তির নীতিমালা ২০১৬ চূড়ান্তকরণ সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, এ বছর বিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেণিতে ভর্তির ফি বাড়ানো হতে পারে। সম্প্রতি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত এক সভায় আগামী ২০১৬ শিক্ষাবর্ষে বেসরকারি স্কুলে ভর্তি ফরমের দাম ও সেশন ফি বাড়ানোর দাবি জানিয়েছেন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানরা। শিক্ষা সচিব নজরুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওই সভায় রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ, মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজসহ খ্যাতনামা একাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
জানা গেছে, সভায় উপস্থিত অধ্যক্ষরা বেসরকারি স্কুলে ভর্তি ফরমের মূল্য ও সেশন ফি বাড়ানোর দাবি জানান। তবে আগামী ২০১৬ শিক্ষাবর্ষেই ভর্তি ফরমের মূল্য ও সেশন ফি বাড়ানো হবে কিনা- এ নিয়ে ওই সভায় কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।
জানা গেছে, এ বছর প্রথম শ্রেণিতে ভর্তির ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীর বয়স ৬ বছরের ঊর্ধ্বে হতে হবে। শিক্ষার্থীর বয়স নির্ধারণের জন্য ভর্তির আবেদন ফরমের সঙ্গে জন্মনিবন্ধনের সত্যায়িত কপি জমা দিতে হবে। প্রথম শ্রেণিতে লটারির মাধ্যমে ছাত্রছাত্রী ভর্তি করা হবে। তবে দ্বিতীয় থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।
এ প্রসঙ্গে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (মাধ্যমিক) চৌধুরী মুফাদ আহমেদ বলেন, বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী ভর্তিতে ৪০ শতাংশ এলাকা কোটা রাখার বিষয়ে তারা একমত হয়েছেন। ঢাকা মহানগরীর সব এলাকায় এই কোটা মেনে ভর্তি করা হবে। শিক্ষা অঞ্চলকে ক্যাচমেন্ট এরিয়ায় ভাগ করা হবে। তিনি বলেন, সব স্কুলে প্রথম থেকে নবম শ্রেণিতে ৪০ শতাংশ কোটায় ভর্তি নেয়া হবে।
সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এলাকার স্কুলে শিশুদের ভর্তি নিয়ে কথা বলেন। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নির্দেশনার পর শিক্ষার্থী ভর্তিতে এলাকা কোটা চালুর সুপারিশ করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠায় মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি)।


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ