ক্যাম্পাস পরিচালিত ফ্রি সেমিনার

সফল মানুষের প্রথম গুণ প্রোএকটিভ এন্ড পজিটিভ এটিচিউড

ক্যাম্পাস’র আয়োজনে ৫ মার্চ অনুষ্ঠিত হয় ফ্রি সেমিনার অন প্রোএকটিভ এন্ড পজিটিভ এটিচিউড এর ২৪তম পর্ব। ক্যাম্পাস’র নিজস্ব অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত এ সেমিনারে অধিকাংশই ছিল বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের ছাত্র-যুবক। ছাত্র-তরুণ তথা যুব সমাজ হলো দেশের চালিকা শক্তি; তাদেরকে জাগাতে না পারলে দেশের উন্নয়নে গতিসঞ্চার হবে না; দেশ কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছতে পারবে না। এ চিন্তা-চেতনার অনুরণন থেকে ক্যাম্পাস সোস্যাল ডেভেলপমেন্ট সেন্টার (সিএসডিসি) অন্যান্য বিভিন্ন কর্মসূচির পাশাপাশি নিয়মিত আয়োজন করে ফ্রি সেমিনার অন প্রোএকটিভ এন্ড পজিটিভ এটিচিউড। রিএকটিভ না হয়ে যেকোনো পরিবেশে প্রোএকটিভ ও পজিটিভ থেকে সফল ও জনপ্রিয় হওয়ার গুণ ও কৌশল শেখানো হয় এ সেমিনারে।
সিএসডিসি’র মহাসচিব এবং বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস পত্রিকার সম্পাদক এম হেলালের সঞ্চালনায় উক্ত সেমিনারে মূল বক্তা ছিলেন প্রোএকটিভ এটিচিউড আন্দোলনের প্রাণপুরুষ ও গবেষক ড. আলমাসুর রহমান।

ড. আলমাসুর রহমান
কারিশম্যাটিক উপস্থাপক ড. আলমাসুর রহমান বলেন- গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে, সকল সফল মানুষের মধ্যে সাধারণত ৭টি গুণ থাকে। এর মধ্যে প্রথম গুণটি হলো প্রোএকটিভ এন্ড পজিটিভ এটিচিউড। শ্রেষ্ঠ মানুষের শ্রেষ্ঠ গুণ যে কোনো পরিস্থিতিতে ঠান্ডা মাথায় কাজ করা; আবেগতাড়িত না হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষমতাই হলো প্রোএকটিভ এটিচিউড। প্রোএকটিভ লোককে রাগানো যায় না, ক্ষ্যাপানো যায় না। রসুল্লাহ (দঃ) কে এত অত্যাচার করা হয়েছে, লাঞ্ছিত করা হয়েছে, জন্মভূমি মক্কা থেকে বিতাড়িত করা হয়েছে। কিন্তু তিনি উত্তেজিত হননি, অত্যাচারীদের অভিশাপ দেননি, তাদের ওপর রাগ করেননি। এজন্যই তিনি সফল হয়েছেন। যারা ধীর-স্থিরভাবে, ঠান্ডা মাথায় কাজ করে, তারাই সফল হয়।
তিনি বলেন- বাঙালি জাতিকে যদি প্রোএকটিভ করে গড়ে তোলা যায়, তাহলে তারা হবে বিশ্বের সেরা জাতি। কারণ বাঙালিরা অনেক গুণে গুণান্বিত। আমরা মাথা ঠান্ডা রেখে কাজ করতে পারি না বলে সাফল্য আমাদের কাছে ধরা দেয় না। ছোটোখাটো কাজের মধ্য দিয়েই আমরা প্রোএকটিভ এটিচিউডে অভ্যস্ত হতে পারি। যেমন- কোথাও গিয়ে আপনার কলম প্রয়োজন হলো, কিন্তু আপনার কাছে কলম না থাকায় সেখানে উপস্থিত এক ভদ্রলোকের কাছ থেকে তার কলমটা চেয়ে নিলেন। চাওয়ার সময় বললেন: কলমটা দেনতো; যেন ঐ কলমটার ওপর আপনার অধিকার আছে। ভদ্রলোক বিরক্ত হয়ে কলমটা দিলেন; আপনার লেখা শেষ হওয়ার পর বললেন- নিন আপনার কলমটা। এবারও ভদ্রলোক আপনার ব্যবহারে প্রসন্ন হতে পারলেন না। ঠিক একই ঘটনায় আপনি যদি শুরুতে বলতেন- আপনার কলমটা পেতে পারি কী? ভদ্রলোক খুশি হতেন। কলম ফেরত দেয়ার সময় যদি বলতেন- ধন্যবাদ, আপনার কলমটার লেখা বেশ ভালো। ভদ্রলোক আরও খুশি হতেন। এটিচিউডের তারতম্যের কারণেই দু’রকম রেজাল্ট পাওয়া যাবে। প্রশংসা করার অনেক ধরন আছে; কিন্তু প্রকাশভঙ্গি আমাদের জানা নেই বলে আমাদের আচরণ আকর্ষণীয় হয় না, কাঙ্খিত অর্জন সম্ভব হয় না।
ড. আলমাস বলেন - মানুষ সকল সৃষ্টির সেরা, কিন্তু আল্লাহ তাকে মাটি দিয়ে তৈরি করেছেন। এর কারণ হলো- মাটি ঠান্ডা, শান্ত, স্থির সর্বংসহা। তাই আমাদেরকে শান্ত থাকতে হবে; ব্রেনকে শান্ত রাখতে হবে। উদাহরণস্বরূপ বলেন- আপনি দীঘির জলে রূপালী মাছের খেলা দেখার ইচ্ছা করলেন, শান্ত দীঘির জলে চাঁদের জোছনার মাতামাতি দেখতে চাইলেন- কোনোটাই সফল হবে না যদি দীঘির পানি শান্ত না থাকে, স্থির না থাকে। সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে হলে আমাদেরকে শান্ত, স্থির, প্রোএকটিভ থাকতে হবে। মানুষ শান্ত হয়ে, স্থির হয়ে যদি সিদ্ধান্ত নিতে পারে -তাহলে সে সফল হবে, জয়ী হবে।
ড. আলমাসুর রহমান বলেন, কারো সাথে শ্রেষ্ঠত্বের প্রতিযোগিতায় সর্বদা নিজেকে একঘর উপরে রাখতে হবে। কেউ আপনাকে গালি দিলে, রাগের বসে খারাপ ব্যবহার করলেও আপনি গালি দিবেন না, রাগবেন না। কেননা আপনি সর্বদা উপরে থাকতে চান, তাই আপনার ব্যবহার হবে সর্বদা ভালো ও মার্জিত। সর্বাবস্থায় এ এটিচিউড ধরে রাখতে পারলে আপনি ওপরে উঠে গেলেন। তিনি বলেন - আমরা কেউ ১০০ বছর আগে ছিলাম না, ১০০ বছর পরেও থাকব না; থাকবে শুধু আমাদের ভালো ব্যবহার, সুকৃতি। সেই দুর্লভ অর্জনের জন্যই আমাদেরকে সচেষ্ট হতে হবে।

এম হেলাল
অনুষ্ঠানের সঞ্চালক, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস পত্রিকার সম্পাদক এম হেলাল বলেন- প্রোএকটিভ এন্ড পজিটিভ এটিচিউড সেমিনারের মাধ্যমে ক্যাম্পাস সমগ্র জাতিতে ছড়িয়ে দিচ্ছে ইতিবাচক চিন্তা-চেতনার অনুপম ব্যঞ্জনা; মানুষের হতাশা দূর করে গড়ে তুলছে দৃঢ়চেতা বলিষ্ঠ জাতি। ক্যাম্পাস’র শিক্ষা- আমরা পরাভব মানব না, আমরা জয়ী হব। নেগেটিভ এন্ড রিএকটিভ এটিচিউডকে হটিয়ে আমরা গড়ে তুলব ইতিবাচক চিন্তা-চেতনার উন্নত জাতি।
তিনি বলেন- আমাদের চিন্তা-চেতনায় ধারণ করতে হবে পজিটিভ এটিচিউড; আমরাও পারি এই এটিচিউড দিয়ে আমরা বিশ্ব জয় করব। আশা করি, আজকের উপস্থিতগণ যেকোনো পরিবেশে প্রোএকটিভ ও পজিটিভ থেকে নিজকে সফল ও জনপ্রিয় করে তুলতে সক্ষম হবেন। ক্যাম্পাস পরিচালিত পরবর্তী প্রোএকটিভ সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে ৩০ জুলাই, বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টায়। সেই সেমিনারের বিষয়- How to Develop Relationship.