বিশেষ খবর

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়সহ সকল বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে

ভ্যাট অবিলম্বে প্রত্যাহার করা অতীব জরুরি  

 

২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেটে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়, বেসরকারি মেডিকেল কলেজ, ডেন্টাল কলেজ ও ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের উপর ১৫ শতাংশ প্রস্তাবিত ভ্যাট আরোপ করার ঘোষণা শিক্ষার্থী, অভিভাবকসহ সংশ্লি­ষ্ট সকলকেই হতাশ করেছে। শিক্ষার্থীদের বড় একটি অংশ উচ্চশিক্ষার জন্য বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোয় পড়াশোনা করছে। এসব শিক্ষার্থীদের সিংহভাগই মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান। এ ভ্যাট বাস্তবায়িত হলে, শিক্ষার্থী ও শিক্ষার্থীদের পরিবারের উপর নেতিবাচক প্রভাব পড়বে নিঃসন্দেহে, যা ভবিষ্যতে রাষ্ট্রের উন্নয়ন অগ্রগতিতে বাধা হয়ে দাঁড়াবে। 

করোনা মহামারীর এই সময়ে যেখানে শিক্ষাখাতে সরকারের প্রণোদনা দেওয়া দরকার, সেখানে ১৫ শতাংশ ভ্যাট আরোপ করা মোটেও সমীচীন নয়। করোনা মহামারীর এ ক্রান্তিলগ্নে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের মধ্যবিত্ত পরিবারগুলো ভীষণ অর্থনৈতিক চাপের মধ্যে রয়েছ। এ অবস্থায় বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ১৫ শতাংশ ভ্যাট আরোপ করা অত্যন্ত অমানবিক হবে। তাই অনতিবিলম্বে শিক্ষার্থীদের বিশাল অংশের কথা বিবেচনা করে রাষ্ট্রের সুষ্ঠু অগ্রগতি নিশ্চিতে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়সহ সকল বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে প্রস্তাবিত ভ্যাট অবিলম্বে প্রত্যাহার করা অতীব জরুরি।


পাবলিক-প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইনে পরীক্ষা গ্রহণের সময়োপযোগী প্রশংসনীয় উদ্যোগ  

 

দেশের সকল পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় অনলাইনে শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা নিতে পারবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) নেতৃত্বে ১০ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে একটি প্রতিবেদন দাখিল করলে সেই রূপরেখাটি অনুমোদন করে মন্ত্রণালয়। এরপর দেশের সকল পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপরেখাটি বাস্তবায়নের জন্য পাঠানো হয়। এখন সকল বিশ্ববিদ্যালয় তাদের শিক্ষার্থীদের নির্ধারিত পদ্ধতি অনুসরণ করে অনলাইনে পরীক্ষা গ্রহণ করতে পারবে।

করোনা মহামারীর কারণে দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীদের অনলাইনে ক্লাস পরিচালনার সঙ্গে পরিচিতি এবং অভ্যস্ততা তৈরি হয়েছে। ভবিষ্যতে বিশ্ববিদ্যালয়সমূহের পরীক্ষা গ্রহণের এই অর্জিত দক্ষতা শিক্ষা কার্যক্রম সর্বব্যাপী পরিচালনা করার ক্ষেত্রেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে। করোনা  মহামারীর প্রভাবে অর্জিত বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর অনলাইন পরীক্ষা কার্যক্রম পরিচালনার এই দক্ষতা অবশ্যই বিশ্ববিদ্যালয়ের গুণগত মানের পরিবর্তনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। পাবলিক ও প্রাইভেট সকল বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইনে পরীক্ষা গ্রহণের সময়োপযোগী এই প্রশংসনীয় উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাই।

আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ

Like Us