বিশেষ খবর

দেশের প্রয়োজনে দেশেই মেধা সৃষ্টি করছি -প্রধানমন্ত্রী

ক্যাম্পাস ডেস্ক শিক্ষা সংবাদ

দেশের প্রয়োজনে আমাদের মেধা আমরাই সৃষ্টি করছি। দেশের উন্নয়নে যে দক্ষ ও উদ্ভাবনী জনশক্তি দরকার তা দেশেই সৃষ্টি করতে সব ধরনের প্রচেষ্টা সরকার অব্যাহত রেখেছে। এ কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
তিনি বলেন, আমরা নিজেদের স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করতে যাচ্ছি, বিশাল সমুদ্র সম্পদ সুরক্ষা আমাদেরই করতে হবে, আমরা পদ্মাসেতু নির্মাণ করছি, আমরা গড়ে তুলছি নিজেদের বিদ্যুৎ প্রকল্প আর এসব ক্ষেত্রেই আমাদের প্রয়োজন মেধাবী, দক্ষ, প্রশিক্ষিত জনশক্তি। যা নিজেদেরই উৎপাদন করতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি)’র উদ্যোগে মেধাবী শিক্ষার্থীদের ‘প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক’ দেয়ার অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছিলেন প্রধানমন্ত্রী।
সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের শাপলা হলে এই কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে তিনি ২০১৩ ও ২০১৪ সালে পদক অর্জনকারী ২৩৩ জনের হাতে পদক ও সনদ তুলে দেন। আর বক্তৃতার শুরুতেই বলেন, স্বাধীনতার এই মাসে দেশের কৃতী শিক্ষার্থীদের হাতে স্বর্ণপদক তুলে দিতে পেরে আমি গৌরববোধ করছি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশ্ব আজ এগিয়ে চলেছে, বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে আমাদের ছেলে-মেয়েরা এগিয়ে চলবে এটাই আমাদের প্রত্যাশা। জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমানের শিক্ষার উন্নয়নে নেওয়া উদ্যোগগুলোর কথা স্মরণ করে শেখ হাসিনা বলেন, তাঁর নেওয়া পথেই আমরা আমাদের শিক্ষার বিস্তার করে চলেছি।
২০১৩ ও ২০১৪ সালে দেশের পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদে সর্বোচ্চ নম্বর ও সিজিপিএ-প্রাপ্ত ২৩৩ জন মেধাবী ছাত্রছাত্রী এই প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক পেয়েছেন। ২০১৩ সালের জন্য ১১০ জন এবং ২০১৪ সালের জন্য ১২৩ জন কৃতী শিক্ষার্থী এই পদক পেলেন। সরকারের বিভিন্ন উদ্যোগ প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা বলেন, দেশের প্রধানতম প্রয়োজন শিক্ষার বিস্তার, সব মানুষকে সাক্ষর করে তোলা, যা তার সরকার করেছে।
গ্রাম-বাংলায় জরিপ করে শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়ন ঘটনো হয়েছে, প্রাথমিক স্কুল সংস্কার, নির্মাণ, মাধ্যমিকে মেয়েদের পাঠের পরিবেশ সৃষ্টি, শিক্ষক নিয়োগে নারীদের অগ্রাধিকার, মানসম্মত শিক্ষার জন্য শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ, আধুনিক শ্রেণিকক্ষ ব্যবস্থা, স্কুলে স্কুলে ল্যাপটপ, প্রজেক্টর এগুলো দেয়া হয়েছে, জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দেশের প্রতিটি জেলায় সরকারি কিংবা বেসরকারি যাই হোক একটি করে বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে তোলার স্বপ্নের কথাও এসময় তুলে ধরেন তিনি।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন শিক্ষামন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ।


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ