উম্মে সালমা রনি
উপ-পরিচালক (প্রশাসন ও প্রোটোকল)

কোটি মানুষের প্রেরণার ক্যাম্পাস দর্শন ও নেতৃত্ব একেবারে ব্যতিক্রম

যেকোনো কিছুর ক্ষেত্রেই প্রথম অভিজ্ঞতা একটু অন্যরকম। যেমন প্রথম দেখা, প্রথম ভালো লাগা, প্রথম প্রেম, প্রথম সন্তান, প্রথম পরীক্ষা ইত্যাদি। আমার জীবনের প্রথম পরীক্ষায় আমি প্রথম হয়েছিলাম। সেটি ছিল আমার স্কুলে ভর্তি পরীক্ষা। তারপর অনেক চড়াই উৎরাই পার হয়ে ... Details
মোহাম্মদ মোস্তফা, কন্ট্রিবিউটর, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস পত্রিকা

ক্যাম্পাস এ আমার ১৬ বছর অথচ মনে হয় এইতো সেদিন..

বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস পত্রিকা ৪ দশকে পা রেখেছে। পত্রিকা প্রকাশনার বাইরেও গড়ে তুলেছে ক্যাম্পাস সোস্যাল ডেভেলপমেন্ট সেন্টার (সিএসডিসি); ডালপালা মেলে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে এর কর্মপরিধি। জ্ঞানভিত্তিক ও ন্যায়ভিত্তিক সমাজ এবং আলোকিত জাতি গঠনে নিবেদিত এ প্রতিষ্ঠানের বহুমুখী কর্মসূচি শুধু যে চমৎকার তা নয় এর পাশাপাশি বলিষ্ঠ প্রত্যয়ে সমাজকে এগিয়ে নেয়া, চিন্তার পরিবর্তন ঘটিয়ে Superior Human Being তথা উচ্চ গুণসম্পন্ন আলোকিত মানুষ ... Details
ড. নাজনীন আহমেদ
অনারারী রিসার্চ ডিরেক্টর, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস

ক্যাম্পাসঃ আমার স্বপ্নের অবিচ্ছেদ্য অংশ

পরিণয় সূত্রে আমার পরিচয় ক্যাম্পাস’র সাথে। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস পত্রিকার সম্পাদক এম হেলাল’র সাথে দাম্পত্য জীবন শুরুর পর থেকেই মূলত এ প্রতিষ্ঠানকে জানতে শুরু করি। এর আগে কেবল ক্যাম্পাস পত্রিকাটি পড়তাম, অন্যান্য কার্যক্রম সম্পর্কে কিংবা প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে জানতাম না। ১৯৯৪ সালে যখন ক্যাম্পাস’র সাথে আমার ঘনিষ্ঠতা শুরু হয়, তখন এর অফিস ছিল মতিঝিল মডার্ন ম্যানসনের ১৫ তলায়; ভাড়া করা স্বল্প পরিসরের পত্রিকা অফিস। ... Details
সৈয়দা শামছুন্নাহার নাবিলা
উপ-সহকারী পরিচালক

আমার চেতনায় ক্যাম্পাস এবং একজন ব্যতিক্রমী সম্পাদক

হাঁটি হাঁটি পা-পা করে ৬টি বছর কেটে গেল। অনার্স ১ম বর্ষে যখন বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণে আমার পদচারণা সবেমাত্র শুরু, সেসময়ে তার সাথে আমার প্রথম পরিচয়। যেন তাকে একটু একটু করে চেনার চেষ্টা। নতুনকে জানার আকাক্সক্ষায় ক্লাস ও লাইব্রেরি ওয়ার্কের পর বাকিটা সময় বাঁচিয়ে রাখা শুধু তাকে পরিদর্শনের জন্য। হ্যাঁ, আজ এরূপ আবেগ নিয়েই লিখতে চাই..। সে আর কেউ নয়, কিছু নয়; ... Details
উম্মে সালমা রনি
উপ-পরিচালক (প্রশাসন ও প্রোটোকল)

স্বচ্ছতা-জবাবদিহি-সুশাসন ও দক্ষতার অনন্য দৃষ্টান্ত ক্যাম্পাস সমাজ উন্নয়ন কেন্দ্র

ব্যক্তি, সমাজ বা রাষ্ট্রীয় জীবনে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার চর্চা আমাদের নেই বললেই চলে। তাই সততা ও নিষ্ঠার নিদারুণ দুর্ভিক্ষ এখন বাংলাদেশে। সততার এ আকালে হতাশ দেশের আমজনতা, হতাশ বিদেশীরা, এমনকি হতাশা আমাদের সরকারেও। স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও সুশাসনের দুর্ভিক্ষে পানি-গ্যাস-বিদ্যুৎসহ নিত্য প্রয়োজনীয় বহুকিছুর অভাবে ও দারিদ্র্যের কষাঘাতে জর্জরিত গোটা জাতি। তবে হতাশার এ অমানিশায়ও ড. মোহাম্মদ ইউনূস, ফজলে হাসান আবেদ, বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র, ... Details
ড. এম হেলাল
সম্পাদক, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস পত্রিকা

ক্যাম্পাস`র অনুকরণে ভালোবাসাময় পারিবারিক শিক্ষা

সামাজিক, জাতীয় কিংবা আন্তর্জাতিক যেকোনো উন্নয়ন, উৎকর্ষ ও আধুনিকতার উৎসস্থল হচ্ছে পরিবার। অথচ অধিকাংশ মানুষই পারিবারিক সম্পর্কের বিষয়ে উদাসীন। বিশেষত বাংলাদেশের শিক্ষা পদ্ধতি ও সমাজ ব্যবস্থায় পারিবারিক মূল্যবোধের বিষয়টি একেবারেই অবহেলিত। এই একটিমাত্র বিষয় তথা পারিবারিক মূল্যবোধের অভাবেই ব্যক্তিজীবনে হতাশা ও বিকারগ্রস্ততা, ... Details
মাহীর হেলাল
ক্যাম্পাস’র শিক্ষানবিশ

ক্যাম্পাস’র ক্যাম্পেইন উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আমি

ক্যাম্পাস সমাজ উন্নয়ন কেন্দ্রের উদ্যোগে প্রতিবছরই অনুষ্ঠিত হয় বার্ষিক ক্যাম্পেইন। গত ২ বছর আমি এই ক্যাম্পেইনে অংশ নিয়েছি। এ বছরও অংশ নিচ্ছি। বিভিন্ন টিমে ভাগ হয়ে আমরা সারাদিন বিভিন্ন অফিস-আদালতে যাই, শুভেচ্ছা জানাই, দেয়ালে ক্যালেন্ডার লাগাই ইত্যাদি। এই ক্যাম্পেইনে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে বয়সে আমি সবার ছোট। এ বছর ইতোমধ্যে আমি ১০ দিন ক্যাম্পেইন করেছি। আমার ক্যাম্পেইন অভিজ্ঞতার মধ্যে সবচেয়ে Exciting ছিল ... Details
রাজিব গুপ্ত
উপ-সহকারী পরিচালক

ক্যাম্পাসঃ অনন্য অনুকরণীয় প্রতিষ্ঠান

কম্পিউটার শেখার অদম্য আগ্রহ নিয়ে আমি যখন যুৎসই একটি কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টার খুঁজছিলাম, তখনই একটি দৈনিক পত্রিকার সংবাদে জানতে পারি ক্যাম্পাস’র ফ্রি কম্পিউটার ট্রেনিংয়ের কথা। পরবর্তীতে ক্যাম্পাস এ কম্পিউটার শিখতে এসে অবাক হয়ে এটা লক্ষ্য করি যে, কম্পিউটার শিক্ষার মাধ্যমে এই ক্যাম্পাস কীভাবে ছাত্র-যুবকদের বিবেকবোধকে জাগ্রত করার কাজ করছে! মানুষকে ভালোবাসা এবং মানুষের প্রতি সহানুভূতি ... Details
আনিসুর রহমান এরশাদ
বিশেষ প্রতিবেদক

আমার ভালোলাগা ও ভালোবাসার ক্যাম্পাস

শুধু আমি কেন, বেশিরভাগ মানুষেরই নতুন অফিসে নিজকে মানিয়ে নেয়া নিয়ে শংকা থাকে। নতুন কর্মস্থল কেমন, বস কেমন, সহকর্মী কেমন এগুলো নিয়ে মনে থাকে অজানা শংকা। অনেক দিনের একটি পরিবেশ থেকে এসে নতুন পরিবেশে মানিয়ে নেয়া আসলেই সহজ নয়। পুকুরে যখন মাছের পোনা ছাড়া হয়, তখন পুকুরের পানির তাপমাত্রার সাথে সমন্বয় করেই পোনা ছাড়া হয়; তা না হলে পোনা মারা যাওয়ার আশংকা থাকে। বিদেশি গরু যখন গোয়ালে তোলা হয়, ... Details
রাইসা হেলাল
ক্যাম্পাস’র শিক্ষানবিশ

ক্যাম্পাস’র শিক্ষা অন্যের দোষ ধরার আগে নিজের দোষ সম্পর্কে সচেতন হই

ক্যাম্পাস সমাজ উন্নয়ন কেন্দ্রের শিক্ষানবিশ হিসেবে কাজ করার সুবাদে এখানকার স্টাফ মিটিংগুলোতে অংশগ্রহণের সুযোগ হয় আমার। ক্যাম্পাস অফিসের সাপ্তাহিক স্টাফ মিটিংয়ের বিশেষত্ব হলো- এতে ক্যাম্পাস কর্মসূচি সংক্রান্ত আলোচনা ছাড়াও স্টাফ ও শিক্ষানবিশদের আত্মোন্নয়ন ও জীবন গঠনের নানা বিষয়ে আলোচনা ও পরামর্শ প্রদান করা হয়। একেকদিন নতুন নতুন একেক বিষয়ে আলোচনা করেন সভার সভাপতি, ক্যাম্পাস’র মহাসচিব ... Details
উম্মে মাহবুবা সোমা
এক্সিকিউটিভ

ক্যাম্পাস’র জ্ঞান-সমুদ্র থেকে আমার শিক্ষা ও অভিজ্ঞতা

একটি প্রতিষ্ঠানে আমি ছোটখাট পদে চাকরি করছিলাম। কিন্তু ঐ প্রতিষ্ঠানের কাজের ধরনের সাথে মানসিকভাবে খাপ খাওয়াতে পারছিলাম না। সেরূপ অবস্থায় এক ঘনিষ্ঠজনকে চাকরি পরিবর্তনের ইচ্ছার কথা জানাই। তিনি আমাকে বললেন ‘ক্যাম্পাস’ নামে একটি ব্যতিক্রমী প্রতিষ্ঠান ও পত্রিকা অফিস আছে, সেখানে সিভি নিয়ে যাও। সততা, একাগ্রতা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে আবেদন করলে একটা কিছু হয়ে যেতেও পারে। সম্ভবত তিনি আমার চাকরির ... Details
রিমেল বড়ুয়া
ওয়েব ডেভেলপার এবং গ্রাফিক্স ডিজাইনার

ক্যাম্পাস’র সাথে আমার পথচলা

ওপেন সিসমি, মনে মনে আওড়ালাম। আলিবাবার গুপ্তধনের গুহার বন্ধ দরজা সিসেম না খুললেও ক্যাম্পাস অফিসে পৌঁছানোর জন্য আমি যে লিফটে উঠেছি, সেটার দরজা খুলে গেল। সামনে বিপুল ধনসম্পদ দেখতে না পেলেও যা খুঁজে পেলাম, সেটা আলীবাবার গুপ্তধনের চাইতে কোনো অংশে কম নয়। লিফট খুলতেই সামনে দেখি ক্যাম্পাস’র বিশাল ব্যানার, যেখানে লেখা; ছাত্রছাত্রীদের জন্য বিনামূল্যে দেয়া বিভিন্ন কার্যক্রমের বর্ণনা যেমন ফ্রি কম্পিউটার ট্রেনিং, ফ্রি ইংলিশ কোর্স, ফ্রি মেডিটেশন, প্রোএকটিভ ... Details
উম্মে সালমা নিপু
সিনিয়র এক্সিকিউটিভ

ক্যাম্পাস এবং আমার স্বপ্ন পূরণ

আমার প্রথম Corporate job ক্যাম্পাস এ; Just wow. আমি ২০০৬ এ মাস্টার্স শেষ করে একদম বেকারই বসেছিলাম। কেবল মনযোগ দিয়ে সংসারধর্ম পালনই ছিল আমার একমাত্র কাজ। ২০০৯ সালের জুলাই মাসে হঠাৎ একটি স্কুলে নার্সারি শিক্ষক হিসেবে যোগদান করি। তখন মনে হয়েছিল, এটাই মেয়েদের জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত পেশা; মহৎ পেশাতো বটেই। জুলাই ২০০৯ থেকে সেপ্টেম্বর ২০১৫ পর্যন্ত শিক্ষকতাই করছিলাম।  যদিও এর মাঝে ক্লাস বদলেছি, স্কুলও বদলেছি। ভালোই লাগছিল ... Details
মোঃ মনিরুজ্জামান
সিনিয়র উপ-সহকারী পরিচালক

সমাজ উন্নয়নে ক্যাম্পাস

ছাত্র-যুবকদের চিন্তার পরিবর্তনে এবং সমাজ জাগরণের এক বিস্ময়কর প্রতিষ্ঠান হচ্ছে ‘ক্যাম্পাস’। এ প্রতিষ্ঠানের সাথে জড়িত হওয়ার আগে এর সম্পর্কে অতটা ধারণা করতে পারিনি। কিন্তু চাকরির সুবাদে সংশ্লিষ্ট হয়ে এখন বুঝতে পারছি পত্র-পত্রিকায় বা টেলিভিশনে বিজ্ঞাপন প্রচার না করায় এ প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে বাইরে থেকে সম্যক ধারণা করা সত্যি মুশকিল। কিন্তু ভেতরে এলে অল্প দিনেই যে কারুর চিন্তা ও মননে সত্য ও ন্যায়ের কর্মস্পৃহা জাগাতে এ প্রতিষ্ঠানের পদ্ধতিগত কারিশমা অভূতপূর্ব। ... Details
নাজনীন সুলতানা, ক্যাম্পাস’র কম্পিউটার ট্রেইনি

আমার দৃষ্টিতে ক্যাম্পাস

যুব-সমাজের উন্নয়নে নিবেদিত প্রতিষ্ঠান ক্যাম্পাস সমাজ উন্নয়ন কেন্দ্র। কয়লা খনিতে যেভাবে হীরক উৎপন্ন হয়, ঠিক সেভাবে ক্যাম্পাস আমাদের ছাত্র সমাজের মধ্য থেকে উজ্জ্বল সম্ভাবনাকে বের করে নিয়ে আসতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। সেজন্য ক্যাম্পাস’র রয়েছে নানামুখী ডায়নামিক কর্মসূচি, যার একটি ফ্রি কম্পিউটার ট্রেনিং। ট্রেনিংয়ের সুবাদেই এ সংস্থার সাথে আমি সম্পৃক্ত হয়েছি এবং এখন এর সম্পর্কে আমার ধারণা অত্যন্ত ইতিবাচক। তথ্য-প্রযুৃিক্তর এই যুগে টিকে থাকতে হলে কম্পিউটার ও ইন্টারনেটের বিকল্প নেই। তাই যুব সমাজকে তথ্য-প্রযু্িক্ততে দক্ষ করে তুলতে ... Details
রাইসা হেলাল
ক্যাম্পাস’র শিক্ষানবিশ

মধ্য আয়ের বাংলাদেশ এবং ক্যাম্পাস’র জাতি জাগরণী কার্যক্রম

গত পহেলা জুলাই বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশকে নিম্ন-মধ্য আয়ের দেশ হিসেবে ঘোষণা করে। এটলাস নামক এক বিশেষ পদ্ধতিতে মাথাপিছু জাতীয় আয়ের হিসাব-নিকাশের ওপর ভিত্তি করে বিশ্বব্যাংক এ ঘোষণা দেয়। এটি আমাদের জন্য একটি আনন্দের খবর। নিম্ন আয়ের দেশ থেকে নিম্ন-মধ্য আয়ের দেশ হয়ে ওঠা আমাদের সাফল্যের স্বীকৃতি বৈকি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এবং অনেক অর্থনীতিবিদ আশা করেন, বাংলাদেশ খুব তাড়াতাড়ি মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে। কিন্তু উন্নয়নের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির পাশাপাশি যখন অতি সাধারণ খেটে খাওয়া নিম্নবিত্ত মানুষের জীবনযাপন দেখি, তখন বিশ্বাস হতে চায় ... Details
মোহাম্মদ গোলাম কিবরিয়া, রিসোর্স পার্সন, ইংলিশ কোর্স

সার্টিফাইড মানুষদেরকে কোয়ালিফাইড করছে ক্যাম্পাস

ক্যাম্পাস একটি ব্যতিক্রমী নাম, একটি নতুন কনসেপ্ট। ক্যাম্পাস অদম্য, এক উদ্যমী প্রয়াস ও অফুরন্ত অনুপ্রেরণা। ক্যাম্পাস কান্ডারীরূপ এক আলোর দিশারী, স্বপ্নদ্রষ্টা। ক্যাম্পাস আমাদের আশা-জাগানিয়া অভিভাবক; সমাজে ও জাতিতে ইতিবাচক চিন্তা-চেতনা, দৃষ্টিভঙ্গি ও কর্ম সাধনে দৃঢ় প্রত্যয়ের উৎসস্থল। ন্যায়ভিত্তিক ও জ্ঞানভিত্তিক সমাজ বিনির্মাণে পথিকৃৎ হিসেবে উচ্চশির এই ক্যাম্পাস। সেই ১৯৮৪ সালে ক্যাম্পাস প্রতিষ্ঠার পর থেকে অদ্যাবধি সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যে এগিয়ে চলেছে। ক্যাম্পাস’র পরিবেশ-প্রতিবেশ আর পারিপার্শ্বিকতায় শুধুই ইতিবাচকতা। ... Details
ইরফাত জাহান
ক্যাম্পাস’র শিক্ষানবিশ

নীতি ও আদর্শে ক্যাম্পাস

আমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পড়ছি এবং শিক্ষানবিশ হিসেবে ক্যাম্পাস সমাজ উন্নয়ন কেন্দ্রে কর্মরত। আজ আমি বলতে চাই ক্যাম্পাস’র ৬টি নীতি সম্পর্কে, যা উন্নততর মানুষ বা Superior Human Being হওয়ার জন্য অত্যাবশ্যক। আর সে নীতিগুলো হলো ১. যুক্তিভিত্তিক ও ন্যায়ভিত্তিক আচার-আচরণ করা; ২. অন্যের অধিকার ও নিজ দায়িত্বের প্রতি সচেতন হওয়া; ৩. ন্যাচারাল হওয়া অর্থাৎ সহজ-সরল ও স্বাভাবিক থাকা; ৪. ক্ষমাশীল ও ধৈর্যশীল হওয়া; ৫. Thanksful & Grateful হওয়া; ৬. ধর্ম-কর্ম পালন ও অন্যের ধর্মকে সম্মান করা। ... Details
আলাউদ্দিন আসগর
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের প্রাক্তন ছাত্র

ড. এম হেলালঃ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনন্য সৃষ্টি

স্কুল ও কলেজ জীবন পেরিয়ে ১৯৮৫ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিভাগে ভর্তি হই। মনে হয় যেন এইতো সেদিনের কথা, অথচ সময় থেমে নেই। এক এক করে আঠাশটি বছর পার হয়ে গেল। আমার বিশ্ববিদ্যালয় জীবন ছিল অত্যন্ত মধুর ও আনন্দময়। আমি ছিলাম সলিমুল্লাহ মুসলিম হলের আবাসিক ছাত্র। এ হলের ছাত্ররাই পরবর্তী সময়ে দেশের রাজনীতি, প্রশাসন ও অর্থনীতির ক্ষেত্রে অনন্য ভূমিকা রেখেছেন এবং এখনও রাখছেন। সলিমুল্লাহ হলে আমার সাথে পরিচয় হয় হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের মেধাবী ছাত্র ও ... Details
মাহীর হেলাল
ক্যাম্পাস’র শিক্ষানবিশ

ক্যাম্পাস অফিসে মিটিং থেকে যা শিখলাম

যারা চাকরি করেন কিংবা অফিসিয়াল কর্মকান্ডে জড়িত, তাদেরকে বিভিন্ন অফিসিয়াল মিটিং করতে হয়। সাধারণত এরূপ মিটিংয়ে বড়রা অংশগ্রহণ করেন। কিন্তু আমি একেবারে ছোটবেলা থেকে পারিবারিক মিটিংয়ে এবং পঞ্চম শ্রেণি থেকেই অফিসিয়াল মিটিংয়ে অংশগ্রহণ করি। ক্যাম্পাস সমাজ উন্নয়ন কেন্দ্র, যার প্রধান কর্ণধার আমার বাবা এম হেলাল; সেখানে সাধারণত প্রতি শনিবার সাপ্তাহিক অফিস মিটিং অনুষ্ঠিত হয়। আমি ও আমার বড় বোন ক্যাম্পাস’র শিক্ষানবিশ হওয়ার কারণে এসকল মিটিংয়ে অংশগ্রহণ করতে হয়। ... Details
মুনমুন গুপ্তা
ক্যাম্পাস’র স্টাফ-শিক্ষানবিশ

ক্যাম্পাস’র প্রোএকটিভ এটিচিউড সেমিনার আমার জীবনের মোড় ঘুরিয়েছে

ক্যাম্পাস সমাজ উন্নয়ন কেন্দ্র (সিএসডিসি) আয়োজিত প্রোএকটিভ সেমিনারে বক্তব্য প্রদান করেন ড. আলমাসুর রহমান। এই সেমিনারের আলোচ্য বিষয় ছিল ‘সফল ও জনপ্রিয় মানুষের প্রথম গুণ প্রোএকটিভ হওয়া। যুক্তি ও তথ্যের মাধ্যমে বিষয়টি সম্পর্কে ড. আলমাস এর বলিষ্ঠ উপস্থাপন সেমিনারে উপস্থিত সকলের মধ্যে ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি সৃষ্টি ও আত্মউন্নয়নে সহায়তা করেছে। প্রোএকটিভ এটিচিউড এর অর্থ হলো উত্তেজিত ও আবেগতাড়িত না হয়ে যেকোনো ধরনের পরিস্থিতি অসীম ধৈর্যের সাথে মোকাবেলা করা। সকল সফল মানুষের মধ্যে ৭টি গুণ অবশ্যই থাকবে; সেগুলো হলোঃ- ... Details
আব্দুল্লাহ আল মামুন
কনসালটেন্ট, ক্যাম্পাস সমাজ উন্নয়ন কেন্দ্র

মানব উন্নয়নে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস

বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস পত্রিকা ছিল আমার জন্য এক বিশেষ ক্রেজ। সরকারি কাজে বিভিন্ন অফিসে কর্মরত থাকাকালে এ পত্রিকার সাথে আমার পরিচয়। অবসরে গিয়ে কৌতুহলবশত এর সম্পাদক শ্রদ্ধেয় হেলাল ভাই এর সাথে দেখা করতে এসে তাঁর যাদুকরী আকর্ষণে সম্মোহিত হই। সে থেকে ক্যাম্পাস এর সাথে আছি।  ক্যাম্পাস’র পারিপার্শ্বিক অবস্থা আমার ভালো লাগে। নতুন আঙ্গিকের ব্যবস্থাপনা মন কেড়ে নেয়। এখানে যেন আমি মনের খোরাক পাই। ক্যাম্পাস’র অনেকগুলো নিয়মিত কার্যক্রমের মধ্যে উল্লেখযোগ্য একটি হলো স্টাফদের সাপ্তাহিক মত বিনিময় সভা। এই সভার অনেক আকর্ষণীয় ও শিক্ষামূলক দিক আমাকে বিমুগ্ধ করে। অনুরূপ একদিনের কথা। ... Details
লুৎফুন নাহার কনিকা
উপ-সহকারী পরিচালক

যেভাবে ক্যাম্পাস’র সাথে জড়িয়ে পড়লাম

ছোটবেলা থেকেই চাকরি করার ব্যাপারে আমার ছিল খুবই অনীহা। আমার পাশের বাসার নীলা আপু, উনি সব সময়ই খুব তাচ্ছিল্য করে আমাকে বলতেন চাকরি করবে না তাহলে একাউন্টিং এর মতো এত কঠিন একটা Subject নিয়ে পড়ছ কেন, তোমার উচিৎ ছিল ডিগ্রি (পাস) পড়া। আমি বলতাম, আমি জ্ঞানার্জনের জন্য পড়াশুনা করছি, চাকরির জন্য নয়। ২০০৬ সালে মূলত কম্পিউটার শেখার জন্যই আমি ক্যাম্পাস এ আসি। কম্পিউটার শেখার পাশাপাশি ক্যাম্পাস’র বিভিন্ন কার্যক্রম ... Details
মহিন উদ্দিন
সিনিয়র এক্সিকিউটিভ, ক্যাম্পাস সমাজ উন্নয়ন কেন্দ্র

আমার দেখা ক্যাম্পাস প্রিয় ক্যাম্পাস, তুমিই তোমার তুলনা

একটি আলোর কণা পেলে লক্ষ প্রদীপ জ্বলে একটি মানুষ, মানুষ হলে বিশ্বজগৎ টলে। কথাটা জানতাম, কিন্তু মানতাম না। ক্যাম্পাস প্রতিষ্ঠানের সাথে জড়িয়ে এর কর্ণধার হেলাল স্যারকে দেখে উপরোক্ত সত্যকে মানতে বাধ্য হয়েছি। আমার এখন শুধুই মনে হয় ক্যাম্পাস এ আমার আসাটা অনেক দেরি হয়ে গেছে। মনে হয় আরো ১০ বছর আগে যদি আমি ক্যাম্পাস’র সাথে জড়িত হতাম ... Details
স্বর্ণা শারমিন
উপ-সহকারী পরিচালক

স্মৃতিতে সমুজ্জল ক্যাম্পাস পরিবারের সেই ২৪ ঘন্টা

বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস পত্রিকার সম্পাদকের নেতৃত্বে ক্যাম্পাস স্টাফদের নিয়ে সম্পন্ন হয়ে গেল ২৪ ঘন্টার দুর্দান্ত প্রোগ্রাম। এই ২৪ ঘন্টাকে বলা যায় এক ধরনের শিক্ষা সফর। প্রিয় পাঠক, হয়ত ভাবছেন শিক্ষা সফরটা নিশ্চয় কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত, সিলেটের চা বাগান কিংবা কুমিল্লার ময়নামতি অথবা এমন কিছু একটা হবে। কিন্তু না। Recreation এর জন্য ক্যাম্পাস স্টাফদের খুব বেশি দূরে যাওয়ার প্রয়োজন হয়নি। ব্যতিক্রমধর্মী প্রতিষ্ঠান বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস পত্রিকার সম্পাদক এম হেলাল স্যারের প্রোগ্রাম ব্যবস্থাপনার আইডিয়াটাও ছিল ব্যতিক্রম। ... Details
উম্মে সালমা রনি
উপ-পরিচালক (প্রশাসন ও প্রোটোকল)

ক্যাম্পাস পরিবারের বার-বি-কিউ সন্ধ্যা এবং একজন ড. নাজনীন এর গল্প

মানুষ সাধারণত ঈদ-পরবর্তী পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান করে। আর ব্যতিক্রমী ক্যাম্পাস করল ঈদ-পূর্ব আনন্দ আয়োজন। আইডিয়া ও প্ল্যান অবশ্য পুরোটাই আমাদের স্যার তথা ক্যাস্পাস পত্রিকার সম্পাদক এম হেলাল’র। নতুন নতুন আইডিয়া উপস্থাপন ও ব্যতিক্রমী প্ল্যানিংয়ে স্যারের যে জুড়ি মেলা ভার এটিতো আমরা সবাই এতদিনে খুব ভালো বুঝে গিয়েছি। আর তাই ২৪ অক্টোবর বিকেল ৫টায় আমরা, ক্যাম্পাস পরিবারের সদস্যরা সবাই মিলিত হয়েছিলাম সম্পাদক মহোদয়ের বাসায় ঈদপূর্ব রিক্রিয়েশনে। ... Details
পারভীন আক্তার পপি
সহকারী শিক্ষিকা রেনেসাঁ আইডিয়াল স্কুল এন্ড কলেজ

ক্যাম্পাস পত্রিকা অফিসে একদিন

ক্যাম্পাস নামটা শুনলে প্রথমেই মনে হয় এটি হয়ত কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। যদিও এখানে পাঠ্য বইয়ের মাধ্যমে কোনো শিক্ষা দেয়া হয় না, তবুও আমি বলব আসলেই এটি একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। ক্যাম্পাস’র সাথে জড়িত হলেই একজন মানুষ নিজেকে চিনতে শিখে, বুঝতে পারে নিজের অস্তিত্বকে, নিজের মধ্যে লুকায়িত ক্ষমতা সম্পর্কে জানে এবং তার সঠিক ব্যবহার করতে শিখে। মানুষের মনের মধ্যকার বিভিন্ন রকম জড়তা, হীনম্মন্যতা দূর করতে হলে অবশ্যই ক্যাম্পাস এ আসতে হবে ... Details
মো: কামরুজ্জামান
উপ-সহকারী পরিচালক

ক্যাম্পাসঃ আমার গর্ব

ক্যাম্পাস পরিবারের সাথে আমার পরিচিতি বা সম্পর্ক মাত্র ৩/৪ মাস হলেও মনে হয় যেন অনেক দিনের আত্মিক সম্পর্ক রয়েছে। নতুন এই পরিবেশে এসে আজ পর্যন্ত কোনো একাকিত্ব অনুভব করিনি। আমার চাকরি করার ব্যপারে ছোটবেলা থেকেই অনীহা ছিল। আমি যেখানে জন্মগ্রহণ করেছি, পড়ালেখা করেছি, সেই স্থানটি (বাবুরহাট, নরসিংদী) কাপড় ও টেক্সটাইল ব্যবসার জন্য খুবই প্রসিদ্ধ। আমার ছোটবেলার বন্ধু-বান্ধব ও সহপাঠীদের বেশিরভাগ ব্যবসার সাথে জড়িত। তাই বিভিন্ন সময়ে বন্ধুদের দেখাদেখি ব্যবসা করার জন্য মন ছটফট করত। ... Details
নাদিয়া আফরোজ
ক্যাম্পাস’র শিক্ষানবিশ

ক্যাম্পাস’র ক্যাম্পেইনে আমার অভিজ্ঞতা

আমি পিপলস ইউনিভার্সিটিতে পড়াশোনার পাশাপাশি ক্যাম্পাস পত্রিকার একজন শিক্ষানবিশ হিসেবে কাজ করছি। আমি প্রথম অংশগ্রহণ করি বাৎসরিক ক্যাম্পেইনে। ক্যাম্পাস’র সমাজ সচেতনতা কর্মসূচির আওতায় প্রতিবছরই কয়েকবার ক্যাম্পেইন হয়। এ বছরের জানুয়ারিতে আমি যখন ক্যাম্পেইন করতে শুরু করি, তখন থেকে আজ পর্যন্ত আমার অভিজ্ঞতা নানান রকম। আমার জীবনেও এসেছে অনেক পরিবর্তন। ... Details
দেওয়ান মামুনুর রশিদ
ক্যাম্পাস’র শিক্ষানবিশ

ক্যাম্পাস’র ক্যাম্পেইন ২০১০

সৎকর্ম চিরদিন মানুষকে কল্যাণের পথে চালিত করে, আর মন্দকর্ম সাময়িক আনন্দ দিলেও তার পরিণতি ধ্বংসের দিকে উপনীত হয়। এ মহাসত্য আমি বাস্তবে অনুভব করেছি এবং প্রমাণ পেয়েছি ক্যাম্পাস পরিচালিত সামাজিক সচেতনতা কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে, মাসব্যাপী দেশজুড়ে ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে। দুর্নীতিবিরোধী ও প্রাকৃতিক দুর্যোগ প্রতিরোধের এ ক্যাম্পেইনে অংশ নিয়ে যা দেখেছি, বুঝেছি ও শিখেছি তা লিখলে ৮০ পাতায়ও শেষ হবে না। ... Details
ম্রাচিং মারমা
ক্যাম্পাস’র শিক্ষানবিশ

ক্যাম্পাস প্রতিষ্ঠান থেকে যা পেয়েছি

কম্পিউটার যে আমার কাছে সম্পূর্ণ অপরিচিত ছিল তা নয়; দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল খাগড়াছড়ি থেকে ঢাকায় আসার পর প্রায় দু’বছর ধরে কম্পিউটার ব্যবহার করছি। যদিও তা সামান্য কম্পোজ করা কিংবা বিভিন্ন ধরনের গেম খেলা, গান শোনা বা মুভি দেখার মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল। কিন্তু ক্যাম্পাস সমাজ উন্নয়ন কেন্দ্র পরিচালিত কম্পিউটার কোর্সে প্রশিক্ষণ নিতে এসে প্রথম অনুধাবন করলাম কম্পিউটার কী এবং কত বিশাল এর পরিব্যাপ্তি। ... Details
স্বর্ণা শারমিন
উপ-সহকারী পরিচালক

ক্যাম্পাস’র ক্যাম্পেইন অভিজ্ঞতা থেকে বলছি..

ক্যাম্পাস সমাজ উন্নয়ন কেন্দ্র (সিএসডিসি) পরিচালিত বহুমুখী সমাজ সেবামূলক কার্যক্রমের একটি হলো সামাজিক সচেতনতা কর্মসূচি। এ কর্মসূচির আওতায় প্রতিবছর ডিসেম্বরের শেষ দিকে শুরু হয়ে বছরব্যাপী দেশজুড়ে চলতে থাকে বিভিন্ন বিষয়ের ওপর জনসচেতনতা সৃষ্টির প্রয়াস তথা ক্যাম্পেইন। বছরের শুরুতে নববর্ষের শুভেচ্ছা কার্ড, দেয়াল ক্যালেন্ডার ও পকেট ক্যালন্ডার, পত্রিকা, ডেস্ক স্লিপ, লিফলেট ক্যাম্পাস’র এসব উপহার এখন সবার কাছে বেশ সমাদৃত, ... Details
সঞ্জয় কুমার বণিক
ক্যাম্পাস’র শিক্ষানবিশ

ক্যাম্পাস এবং আমার ইচ্ছা পূরণ

ক্যাম্পাস নামটি শুনলেই চোখের সামনে ভেসে ওঠে বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণের ছবি। আমার মানসপটেও সেরকমই একটি ছবি ভেসে উঠেছিল। কিন্তু পত্রিকায় দেয়া ঠিকানা অনুযায়ী যখন ক্যাম্পাস এ এলাম, তখন আমার ধারণা পাল্টে গেল। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো এখানেও সমাজ বিনির্মাণের কারিগর তৈরি করা হয়। কিন্তু দু’টি প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা পদ্ধতি পুরোপুরি ভিন্ন। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা পদ্ধতি হচ্ছে তাত্ত্বিক আর ক্যাম্পাস’র শিক্ষা পদ্ধতি ব্যবহারিক। ... Details
ফারুক হোসেন
ক্যাম্পাস’র শিক্ষানবিশ

ক্যাম্পাস’র সূচিত একুশ শতাব্দীর যুদ্ধ

স্বাধীনতার ৪০ বছর পরও আমাদের আশানুরূপ উন্নতি হয়নি কৃষক থেকে রাজনীতিবিদ সবাই এ কথা এক বাক্যে স্বীকার করেন; কিন্তু কেন? উন্নয়নের জন্য আমাদের কী কী করতে হবে তা কেউ বলছেন না। বাস্তবিক অর্থে আমরা সবাই অলস ও বাকপটু। সব দায়িত্ব কেবল অন্যের, যেন আমার করার কিছু নেই এমন মনোভাব আমরা পোষণ করি। আমরা বেশি বেশি কথা বললেও কাজ কিছু করি না বললেই চলে। ক্যাম্পাস সমাজ উন্নয়ন কেন্দ্র এর সাথে জড়িত ... Details
মো: ইউসুফে শোভন
ক্যাম্পাস’র শিক্ষানবিশ

ক্যাম্পাস গড়ছে ডিজিটাল মানুষ

আমি মোঃ ইউসুফ শোভন, সেন্ট গ্রেগরী হাই স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র। এসএসসি পরীক্ষার পর ক্যাম্পাস’র ফ্রি কম্পিউটার ট্রেনিংয়ে আমি অংশগ্রহণ করি। শুরু হয় ক্যাম্পাস’র সাথে আমার হৃদ্যতা।  ক্যাম্পাস সমাজ উন্নয়ন কেন্দ্রে নিয়মিত আসা-যাওয়ার মাধ্যমে খুব কাছে থেকে এই প্রতিষ্ঠানের সমাজ উন্নয়নমূলক কার্যক্রম সম্পর্কে অবহিত হই; ‘ন্যায়ভিত্তিক ও জ্ঞানভিত্তিক সমাজ এবং আলোকিত জাতি গঠন আমাদের লক্ষ্য’ ক্যাম্পাস’র এ স্লোগানটির প্রতি আস্থা ও ভালোবাসা সৃষ্টি হয়। বুঝতে পারি আলোকিত জাতি গঠনে নিবেদিত এই ক্যাম্পাস। ... Details
মাহফুজুল ইসলাম
ক্যাম্পাস’র শিক্ষানবিশ

ক্যাম্পাসঃ মানুষ গড়ার কারখানা

ক্যাম্পাস সমাজ উন্নয়ন কেন্দ্র (সিএসডিসি) এর জন্ম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে, কেবল পত্রিকা প্রকাশের মাধ্যমে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন ছাত্রনেতা এম হেলাল’র সম্পাদনায় ১৯৮৪ সালে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস পত্রিকার যাত্রা শুরু। প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত বাংলাদেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠের ছাত্র হিসেবে জাতিকে ভালো কিছু দেয়াই ছিল তাঁর উদ্দেশ্য। নৈতিক সে দায়িত্ববোধ থেকেই তিনি শুরু করেন সমাজসেবা ... Details
রাফিউল ইসলাম
ক্যাম্পাস’র শিক্ষানবিশ

আমার ভালোবাসার ক্যাম্পাস

ছোটবেলা থেকে একটি ছন্দ নিজের মাঝে লালন করে আমার বেড়ে ওঠা। তা হলো এমন জীবন তুমি করিবে গঠন, মরিলে হাসিবে তুমি, কাঁদিবে ভুবন। ভুবন কাঁদানো সফল মানুষ হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে চাইলে অবশ্যই মাধ্যম দরকার। আর এ মাধ্যম হিসেবে আমি সন্ধান পেয়েছি ক্যাম্পাস সমাজ উন্নয়ন কেন্দ্র এর। ক্যাম্পাস পরিচালিত ফ্রি কম্পিউটার ট্রেনিংয়ের ছাত্র আমি। পাশাপাশি শিক্ষানবিশ হিসেবে অংশগ্রহণ করি ... Details
রুহুল আমিন
ক্যাম্পাস’র শিক্ষানবিশ

ক্যাম্পাস থেকে আমার অর্জন

বই কেনায় আমার যতটা আগ্রহ, বই পড়ার ক্ষেত্রে ততটা নয়। তবু বই মেলায় ঘুরতে খুব ভালো লাগত। এভাবেই ঘুরতে ঘুরতে ঢাকা আন্তর্জাতিক বই মেলা ২০১০ আমার জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দিল। দিনটা ছিল ১১ই ডিসেম্বর ২০১০, শনিবার। সেদিনও একটা বই কিনেছিলাম; আর মনে মনে পরিকল্পনা করছিলাম মেলার সবগুলো স্টল ঘুরে দেখার। একের পর এক স্টল দেখতে দেখতে চলে আসি ‘বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস’ এর স্টলে। এখানে শুনলাম ফ্রি কম্পিউটার ট্রেনিংয়ের কথা। ভেবে চিন্তে সিদ্ধান্ত নিই, কোর্সটি করব। ... Details
স্বর্না শারমিন
উপ-সহকারী পরিচালক

ক্যাম্পাস’র প্রাতিষ্ঠানিক অনুশীলন | উন্নততর মানুষ হওয়ার মন্ত্র

মন্ত্র! শব্দটি শুনেই মনে হয় কোন কালো যাদু-টাদু হবে হয়ত। কিন্তু না, এগুলো যাদু ঠিকই তবে কালো নয়- দুধের মত সাদা অর্থাৎ ভাল। ক্যাম্পাস’র ৬টি মন্ত্র আছে, যা আমরা ক্যাম্পাস কর্মীরা নিজেদের মধ্যে লালন করি এবং পরিবার-পরিজনদের মাঝে ছড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করি। মন্ত্রগুলো হল- ১। যুক্তিভিত্তিক ও ন্যায়ভিত্তিক আচার-আচরণ করা; ২। অন্যের অধিকার ও নিজ দায়িত্বের প্রতি সচেতন হওয়া; ৩। ন্যাচারাল হওয়া তথা সহজ-সরল ও স্বাভাবিক থাকা; ৪। ক্ষমাশীল ও ধৈর্যশীল হওয়া; ... Details
গিয়াসউদ্দিন আহমেদ
উপ-পরিচালক

আমার প্রিয় ক্যাম্পাস পত্রিকা

আলোকিত জাতি গড়ার অসীম স্বপ্নকে বুকে লালন করে যে প্রতিষ্ঠানের পথ চলা, সে প্রতিষ্ঠানের নাম বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস। ক্যাম্পাস সম্পর্কে লিখতে গেলে ২/৪ পাতায় লিখে শেষ করা যাবে না। তবে ক্যাম্পাস’র সাথে নিজেকে জড়িয়ে আমার যেসব প্রাপ্তি, সেগুলোর কথাই এ লেখায় বলার চেষ্টা করছি। ক্যাম্পাস’র সাথে আমার কিভাবে পরিচয়, সেটাই প্রথমে বলি। ১৯৯৩ সালে এইচএসসি পরীক্ষা দিয়ে আমি ঘরে বসা। আমার চাচা প্রফেসর নাজির উদ্দিন আহমেদ সে বছরই ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষের পদে থাকাকালীন সরকারি চাকরি হতে অবসর নিয়েছেন। বাবাকে হারিয়েছি ৩য় শ্রেণীতে পড়াকালীন সময়ে। ... Details
উম্মে সালমা রনি
সহকারী পরিচালক (প্রশাসন)

ক্যাম্পাস’র নেতৃত্বও ব্যতিক্রমী

যে কোন কিছুর ক্ষেত্রেই প্রথম অভিজ্ঞতা একটু অন্যরকম। যেমন- প্রথম দেখা, প্রথম ভালো লাগা, প্রথম প্রেম, প্রথম সন্তান, প্রথম পরীক্ষা ইত্যাদি। আমার জীবনের প্রথম পরীক্ষায় আমি প্রথম হয়েছিলাম। সেটি ছিল আমার স্কুলে ভর্তি পরীক্ষা। তারপর অনেক চড়াই উৎরাই পার হয়েছি; কিন্তু কখনই আমার প্রিয় ব্যক্তি, আমার প্রিয় শিক্ষক বা আমার প্রিয়... -এ জাতীয় কোন রচনা লিখতে হয়নি। কর্মজীবনে প্রবেশ করে দিন-মাস-বছর গড়িয়ে এখন নিজের ভেতর থেকেই তাগিদ অনুভব করছি, একটা বিষয়ে লিখতে। আর তা হলো- আমার কর্মজীবনের প্রথম বস্, যাঁর কর্মদক্ষতা ও নেতৃত্বগুণে আমি প্রতিনিয়ত মুগ্ধ ও বিস্মিত হচ্ছি, তাঁর সম্পর্কে লিখতে। আমার এ লেখা কে কিভাবে নেবে -তা আমি জানি না। সর্বোপরি আমার বস এ প্রকাশকে কিভাবে দেখবেন, সে আশংকাতো রয়েছেই। ... Details
Umme Salma Rony
Asst. Director
(Admin & Protocol)

I want to be like my Sir

Any first experience in life is something different. Such as first meet, first love, first baby, first examination etc. I stood first in the first examination of my life, which was admission test in my school. Afterwards, I crossed many steps but never had to write any essay on issues like favorite personality, favorite teacher or favorite... etc. Now in my professional career, I feel from my heart to write about a special subject. And it is about my Boss; in every ... Details
উম্মে সালমা রনি
সহকারী পরিচালক (প্রশাসন)

আমার দৃষ্টিতে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস

‘বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস’ সম্পর্কে আমি প্রথম জানতে পারি একটি দৈনিক পত্রিকার মাধ্যমে যেখানে ফ্রি কম্পিউটার ট্রেনিং সম্পর্কিত একটি খবরের উল্লেখ ছিল। সে খবরে আকৃষ্ট হয়ে কম্পিউটার ট্রেনিং নিতেই মূলতঃ আমার এখানে আসা। সাধারণ প্রশিক্ষণার্থী থেকে আমি যে এখানকার একজন কর্মী হয়ে উঠবো এটা ছিল কল্পনাতীত। ‘বিশ্ববিদ্যালয় ক্যম্পাস’ নামের এই প্রতিষ্ঠানটি পত্রিকা প্রকাশের পাশাপাশি বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত এটি আমি প্রথম দিনেই বুঝতে পারি। এখানে অতিথি হয়ে আসা বিভিন্ন বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের বক্তব্য, সম্পাদক-এর বক্তব্য প্রভৃতি শুনে আমার এই প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে এমন ধারণা হয় ... Details
মোঃ ফিরোজ আহমদ

ক্যাম্পাসঃ মিথ্যার আশ্রয় নেই যে প্রতিষ্ঠানে

আমি যখন ভবঘুরের মত ঢাকা শহরে ঘোরাফেরা করছিলাম, তখন একদিন পরিচয় হয় আনোয়ার সাহেবের সাথে।কথা প্রসঙ্গে জানতে পারলাম, উনি একটি সিকিউরিটি কোম্পানীর মালিক; বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে সিকিউরিটি গার্ড সরবরাহ করেন। আমার অসহায়ত্ব বুঝতে পেরে তিনি আমাকে তার কোম্পানীতে চাকরি দিলেন এবং আমি একটি প্রতিষ্ঠানে সিকিউরিটি গার্ডের কাজ করতে থাকলাম। চাকরি করাকালীন একদিন আমার মালিক আমাকে বললেন, তোমাকে একটা নতুন অফিসে ডিউটি করতে হবে।শিক্ষা ও সমাজ উন্নয়নে নিবেদিত ... Details
মোঃ মহিন উদ্দিন
সিঃ এক্সিকিউটিভ

আমার দেখা ক্যাম্পাস : প্রিয় ক্যাম্পাস, তুমিই তোমার তুলনা

একটি আলোর কণা পেলে লক্ষ প্রদীপ জ্বলে একটি মানুষ, মানুষ হলে বিশ্বজগৎ টলে। -কথাটা জানতাম, কিন্তু মানতাম না। ক্যাম্পাস প্রতিষ্ঠানের সাথে জড়িয়ে হেলাল স্যারকে দেখে উপরোক্ত সত্যকে মানতে বাধ্য হয়েছি। আমার এখন শুধুই মনে হয় ক্যাম্পাস -এ আমার আসাটা অনেক দেরি হয়ে গেছে। মনে হয়- আরো ১০ বছর আগে যদি আমি ক্যাম্পাস’র সাথে জড়িত হতাম, তাহলে আজ হয়তো নিজেকে সফল ও সার্থক মানুষ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে পারতাম। মনে হয়, কেন যে আমি এতদিন ক্যাম্পাস’র খোঁজ পেলাম না। ... Details
উম্মে সালমা রনি
সহকারী পরিচালক (প্রশাসন)

কর্মক্ষেত্রে সাফল্যলাভ মোটেই কঠিন নয়

মানব জীবনের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় তার কর্মক্ষেত্র। একটি মানুষ সফলরূপে তখনই গণ্য হয়, যখন সে একটি ভালো প্রতিষ্ঠানে কর্মরত থাকে এবং সেখানে তার পদ বা অবস্থান হয় গুরুত্বপূর্ণ। এটি তাকে সামাজিক মর্যাদা দেয়ার পাশাপাশি অন্য অনেক দিক থেকেও গুরুত্ববহ। কারণ এ প্রতিষ্ঠান থেকে কর্মের মাধ্যমে আয় করেই সে তার জীবন যাপন ব্যয় নির্বাহ করে। তাই ব্যক্তিগত-পারিবারিক-সামাজিক যে দিক থেকেই বিবেচনা করা হোক না কেন, কর্মক্ষেত্র মানুষের জীবনের গুরুত্বপূর্ণ অংশ। ... Details
স্বর্না শারমিন
সিনিয়র নির্বাহী কর্মকর্তা

ক্যাম্পাসঃ আমার প্রিয় কর্মস্থল

‘বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস’ -এমন একটি নাম, যা শুনে অনেকেই প্রথমে মনে করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বা কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস। আবার অনেকে এ নাম শুনে বলে- ‘ও, ক্যাম্পাস পত্রিকা!’অর্থাৎ ক্যাম্পাস সম্পর্কে অনেকেরই ভাল ধারণা রয়েছে। জ্ঞানভিত্তিক ও যুক্তিভিত্তিক সমাজ এবং আলোকিত জাতি গঠনে নিবেদিত একটি প্রতিষ্ঠান ক্যাম্পাস সমাজ উন্নয়ন কেন্দ্র (CSDC), যার বহু কার্যক্রমের একটি হলো শিক্ষাঙ্গনের একমাত্র নিয়মিত পত্রিকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস। ... Details
রাজু আহমেদ
ডিজাইনার

ক্যাম্পাস, মানুষ তৈরির কারখানা

সাপ্তাহিক নিয়মিত সভায় সম্পাদক এম হেলাল স্যার বললেন, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস পত্রিকায় ‘ক্যাম্পাস পরিবার’ শীর্ষক একটি নিয়মিত কলাম প্রতি সংখ্যায় থাকবে, যাতে স্টাফদের লেখা ছাপা হবে। এতে স্টাফদের লেখালেখির অভ্যাস তৈরি হবে এবং ক্রিয়েটিভ বিষয়ে অংশ নিতে সবাই সচেষ্ট হবে। ক্যাম্পাস’র স্টাফরা বিষয়টিকে স্বতঃস্ফূর্তভাবে নিলেন। কেমন যেন একটা খুশির আমেজ ছড়িয়ে পড়লো। আসলে ব্যাপারটা বলতে গেলে খুশির চেয়েও বেশি। আমরা যারা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস পত্রিকা এবং ক্যাম্পাস সোস্যাল ডেভেলপমেন্ট সেন্টার (সিএসডিসি) -এ কাজ করছি, তারা সবাই এত ভাল যে, মনে হয় এরা সহকর্মী নয়, আপন ভাই-বোন অথবা তার চেয়েও বেশি। ... Details
নাদিয়া আফরোজ
শিক্ষানবীশ

ক্যাম্পাস প্রতিষ্ঠানে কাজের অভিজ্ঞতা ও অনুভূতি

ফ্রি কম্পিউটার ট্রেনিং নেয়ার সুবাদেই আমার প্রথম ক্যাম্পাস-এ আসা। ট্রেনিং করাকালীন একদিন জানলাম ক্যাম্পাস’র সমাজ সচেতনতা কার্যক্রম সম্পর্কে, যেখানে ছাত্র-যুবকরাও কাজ করতে পারে। এর আগে এ ধরনের কাজে অংশগ্রহণ করিনি বলে এটা আমার কাছে বিরাট সুযোগ মনে হল। কাজ করতে পারব কি না -এ নিয়ে মনে যথেষ্ট সন্দেহ থাকলেও একরকম জোর করেই এ কাজে অংশ নিলাম। জীবনে বড় অভিজ্ঞতা হল এই ক্যাম্পেইন করতে গিয়ে। মানুষের সাথে চলা-বলা, নিয়ম-শৃঙ্খলা মানা, কর্মে টিকে থাকার দৃঢ় মানসিকতা এবং পারস্পরিক মেলামেশা ও বন্ধুত্বের মাঝে কাজের আনন্দ -এ সবই ক্যাম্পেইন করতে গিয়ে শিখেছি। ... Details
মোঃ কামাল হোসেন
সহকারী পরিচালক

আমার দৃষ্টিতে ক্যাম্পাস

আমি বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস পত্রিকার সহকারী পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি। ২০০৪ সালের ১ জানুয়ারি জুনিয়র এক্সিকিউটিভ হিসেবে যোগদান করে এই প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার এম হেলাল স্যারের আন্তরিক প্র্রশিক্ষণের বদৌলতে আমি আজকের এ অবস্থানে আসতে পেরেছি। ক্যাম্পাস এমন একটি প্রতিষ্ঠান, যেখানে আসলে কেবল ইচ্ছাশক্তি দিয়েই সমাজের উচ্চ আসনে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করা সম্ভব। আমি যখন এখানে যোগদান করি তখন অফিসিয়াল কাজকর্মের এ-বি-সি জানা ছিল না এবং ঢাকা শহরের পূর্ব-পশ্চিম কোন কিছু সম্পর্কে ধারণা ছিল না। ... Details
সৈয়দা তামান্না হাসান
সিনিয়র এক্সিকিউটিভ

সব নেতিবাচক ধারণা বদলে দেয় ক্যাম্পাস

ক্যাম্পাস সমাজ উন্নয়ন কেন্দ্র -এর সাথে আমার পরিচয় ফ্রি কম্পিউটার ট্রেনিংয়ে অংশগ্রহণের মাধ্যমে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উদ্ভিদ বিজ্ঞানে এমএস করার পর আমি একটি চাকরি খুঁজছিলাম। কিন্তু অবাক হয়ে লক্ষ্য করলাম- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফার্স্ট ক্লাস পেলেও চাকরির বাজারে আমার গুরুত্ব কম। এর অন্যতম কারণ- আমি কম্পিউটার জানিনা! দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ থেকে দীর্ঘ শিক্ষাজীবন শেষে ফার্স্ট ক্লাসের সার্টিফিকেট হাতে আমি উপলব্ধি করলাম- এ সার্টিফিকেট কাজে লাগাতে হলে এবার আমাকে তথ্য-প্রযুক্তির স্কুলে ভর্তি হতে হবে অর্থাৎ কম্পিউটারের কাজ শিখতে হবে। কম্পিউটার জানা লোকের চাহিদা বেশি হলেও সুলভে ও সহজে কম্পিউটার শেখা যায়, এমন প্রতিষ্ঠান খুবই কম। ... Details
রেবা আহমেদ
নির্বাহী কর্মকর্তা

ক্যাম্পাস এবং আমার আত্মোন্নয়ন

বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস নামটি আমি যখন প্রথম শুনি, তখন মনে হয়েছিল এটি কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। কিন্তু পরে জানতে পারলাম, তা নয়; এটি একটি পত্রিকা অফিস। আরো বিস্তারিত জানতে পারলাম আমার বড় ভাই যখন ক্যাম্পাস-এ যোগদান করেন। ক্যাম্পাস কি এবং কি নিয়ে কাজ করে -এসবের অনেক গল্প তার মুখেই শুনেছি। পরবর্তীতে ক্যাম্পাস পরিচালিত ফ্রি কম্পিউটার ট্রেনিংয়ে অংশগ্রহণের মাধ্যমে ক্যাম্পাস -এ আমার আসা। ২০০৪ সালে শুরু হওয়া কম্পিউটার ট্রেনিংয়ে আমি ছিলাম ১ম ব্যাচের ট্রেইনী। এই ট্রেনিংয়ের মাধ্যমে আমি কম্পিউটার সম্পর্কে অনেক কিছু শিখেছি। এখন আমি কম্পিউটারে অনেক কাজ করতে পারি। আর এটা সম্ভব হয়েছে ক্যাম্পাস’র মাধ্যমে। ... Details
মোঃ ইউসুফ আলী রানা
সিনিয়র এক্সিকিউটিভ

ক্যাম্পাস পরিবারে আমার দিনগুলি

আমার গ্রামের বাড়ী বরিশাল জেলার বানারীপাড়া থানার মহিষাপোতা গ্রামে। ২০০০ সালের এপ্রিল মাসে আমার চাচাতো ভাইয়ের সাথে ঢাকায় আসি। তিনি নীলক্ষেতে রিপন সাহেবের ফোন-ফ্যাক্স-ফটোকপির দোকানে চাকরি করতেন। চাচাতো ভাইকে বললাম, আমার যে কোন ধরনের একটা চাকরি খুব প্রয়োজন। রিপন সাহেবের কাছে চাচাত ভাই আমার কথা বললেন। তারপর রিপন সাহেবের কথামতো একদিন চাচাতো ভাই আমাকে ক্যাম্পাস পত্রিকা অফিসে নিয়ে গেলেন। যাওয়ার পর পত্রিকার সম্পাদক এম হেলাল স্যার আমাকে বললেন, তুমি কি বাংলা-ইংরেজী পড়তে পার? বললাম- জ্বি-স্যার, পারি। ... Details
সৈয়দা শামছুন্নাহার নাবিলা
সিনিয়র এক্সিকিউটিভ

প্রিয় ক্যাম্পাস : অনেক প্রার্থনা ও শুভ কামনা তোমার জন্য

বেশ কিছুদিন থেকেই কম্পিউটার শেখার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করছিলাম। হঠাৎ একদিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় ক্যাম্পাস ফ্রি কম্পিউটার ট্রেনিং -এর একটি লিফলেট চোখে পড়ে। ক্যাম্পাস অফিসে যোগাযোগ করে জানতে পারলাম ঢাকার প্রাণকেন্দ্র সচিবালয়ের পাশে তোপখানা রোডে অবস্থিত একটি শিক্ষা ও সমাজ সেবামূলক প্রতিষ্ঠান ‘বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস’, যেখানে বিনামূল্যে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। প্রথম দিনের পরিদর্শনেই বুঝতে পারলাম, ক্যাম্পাস প্রতিষ্ঠানটি অন্যান্য অনেক প্রতিষ্ঠান থেকে ব্যতিক্রম। এখানে ন্যায়-নিষ্ঠা ... Details
উম্মে সালমা রনি
সহকারী পরিচালক

আত্মশুদ্ধির অন্যতম উপায়, Sorry বলা

জাতিগতভাবে আমরা অনেক গুণের অধিকারী। আমাদের রয়েছে মাত্র নয় মাসে দেশ স্বাধীন করার গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাস। পাশাপাশি এই আমাদেরই কিছু অভ্যাস ও দুর্বলতার কারণে ভবিষ্যত নিয়ে মাঝে মাঝে তৈরি হয় শঙ্কা। ব্যাখ্যার অনেক কিছু থাকলেও আজ কেবল একটি বিষয় নিয়েই বলব; আর তা হল- আমাদের Sorry বলার অভ্যাস। Sorry শব্দের আভিধানিক অর্থ দুঃখিত হওয়া, ব্যথিত হওয়া, অনুতপ্ত হওয়া, অনুশোচনা বোধ করা প্রভৃতি। অপারগতার জন্য দুঃখ প্রকাশে ব্যবহৃত হয় Sorry অর্থাৎ কোন ভুল বা অন্যায় হয়ে গেলে আমরা বলি, Sorry । এই Sorry -টা বলতে আমাদের যে অনীহা, তা সত্যিই বিস্ময়কর। বর্তমান অবস্থা যা-ই হোক না কেন অতীত ঐতিহ্যে ভাস্বর উচ্চ নাসিকার বাঙালি জাতির Sorry বলতে খুব অনীহা। ... Details
উম্মে সালমা রনি
উপ-পরিচালক

প্রোএকটিভ এটিচিউড চর্চার মাধ্যমে আই এম দ্যা কুইন অব মাই ওয়ার্ল্ড

অন্যান্য অনেক কিছুর মত আমার প্রোএকটিভ হওয়ার শুরু কিন্তু ক্যাম্পাস থেকেই। সত্যি কথা বলতে কি ‘প্রোএকটিভ’ শব্দটির সাথে আমি পরিচিতই ছিলাম না। ২০০৯ সালে হঠাৎ একদিন আমাদের স্যার অর্থাৎ ক্যাম্পাস পত্রিকার সম্পাদক জনাব এম হেলাল বললেন- ৫ জুলাই প্রোএকটিভ সেমিনার হবে; এ সেমিনার তোমাদের অনেক উপকারে আসবে। অন্য সবার মত আমিও খুব উৎসাহী ছিলাম এবং উপকারী সেমিনারের জন্য অপেক্ষা করছিলাম। অবশেষে ৫ জুলাই এল এবং একসময় সেমিনার শেষও হয়ে গেল। সেমিনারের ঘন্টা দেড়েক সময় কোথা দিয়ে কিভাবে পার হল, তা টেরই পেলাম না। ... Details
উম্মে সালমা রনি
উপ-পরিচালক

ক্যাম্পাস’র স্পেশাল ক্যাম্পিং

ক্যাম্পাস’র সব উদ্যোগই যে ব্যতিক্রম, তার পুনঃপ্রমাণ মিলল, যেদিন ক্যাম্পাস পত্রিকার সম্পাদক মহোদয় স্টাফদের সবাইকে নিয়ে ২৪ ঘন্টার ক্যাম্পিংয়ের পরিকল্পনার কথা জানালেন। তাঁর এ আচমকা ঘোষণাটি আরও বেশি চমকপ্রদ ছিল এ কারণে যে, এ ক্যাম্পিং হবে তাঁর সদ্য ওঠা নতুন ফ্ল্যাটে। ক্যাম্পাস স্টাফরা সবাই মিলে যেন এক পরিবার। এখানে নতুন কোন স্টাফ এলে প্রতিষ্ঠান প্রধান থেকে শুরু করে সকলে তাকে যেভাবে আপন করে নেয় এবং যেভাবে হাতে ধরিয়ে কাজ শেখায়, উন্নত মনন ও জীবন দর্শনের তালিম দেয় -আর কোন কর্মস্থলে এমন সুযোগ ও পরিবেশ আছে কি না, আমার জানা নেই। ... Details
মোঃ মনিরুজ্জামান মৃদুল
সিনিয়র ডিজাইনার

ক্যাম্পাস প্রতিষ্ঠান থেকে শিখেছি জিনিসপত্র যথাস্থানে রাখার মাধ্যমে কর্মদ্রুততার কৌশল

হতাশামুক্ত উচ্ছল-উজ্জ্বল-আলোকিত জাতি গঠনে নিবেদিত প্রতিষ্ঠান ক্যাম্পাস সমাজ উন্নয়ন কেন্দ্র (সিএসডিসি)। এ কল্যাণধর্মী প্রতিষ্ঠানে আমি যোগদান করি ২০০৯ সালের ডিসেম্বরে। যোগদানের পর থেকে প্রতি মুহূর্তেই কিছু না কিছু শিখছি। কাজ শেখা থেকে শুরু করে সময়ানুবর্তিতা, ন্যায়নিষ্ঠা, যুক্তিভিত্তিক আচরণ, সততা, স্বাস্থ্যসম্মত খাদ্যাভ্যাস, সময়ের সদ্ব্যবহার -এসবের পাশাপাশি রয়েছে মেডিটেশন, ইয়োগা, আকুপ্রেশার, রিফ্লেক্সোলজি প্রভৃতি শেখা। আরও রয়েছে চলন-বলন শেখা, প্রোএকটিভ হতে শেখা, রাগ নিয়ন্ত্রণের কৌশল শেখা ইত্যাদি। এমনই অনেক-অনেক শেখার একটি বিশেষ শিক্ষা- ‘জিনিসপত্র নির্দিষ্ট স্থানে রাখা’। ... Details