বিশেষ খবর

শিক্ষায় বরাদ্দ করা মানে ব্যয় করা নয়, প্রজন্মকে গড়ে তোলার বিনিয়োগ -প্রধানমন্ত্রী

ক্যাম্পাস ডেস্ক শিক্ষা সংবাদ

আধুনিক বিশ্বের জ্ঞান-বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সঙ্গে তাল মিলিয়ে যুগোপযোগী শিক্ষার মাধ্যমে নতুন প্রজন্মকে এগিয়ে নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, জাতীয় বাজেটে শিক্ষায় যে বরাদ্দ দেয়া হয়, তা ব্যয় নয়, আমার কাছে মনে হয় বিনিয়োগ। কারণ এই অর্থ ব্যয়ে আমরা আমাদের বর্তমান প্রজন্মকে গড়ে তুলছি। রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে ‘জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ-২০১৭’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছিলেন প্রধানমন্ত্রী। এবারের শিক্ষা সপ্তাহের সেøাগান ‘শিক্ষার আলো জ্বালবো, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়বো’।
বক্তৃতার শুরুতেই প্রধানমন্ত্রী যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশ গড়তে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের চেষ্টার কথা তুলে ধরেন। তিনি উল্লেখ করেন ভেঙে পড়া শিক্ষা ব্যবস্থা গড়ে তুলতে বঙ্গবন্ধুর নানা উদ্যোগের কথাও। শিক্ষায় বরাদ্দকে বিনিয়োগ উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, আমরা যে শিক্ষার ক্ষেত্রে বাজেট দিই, তা আমার কাছে ব্যয় মনে হয় না। আমি মনে করি এটা বিনিয়োগ। আমরা তো এই অর্থ দিয়ে ভবিষ্যৎ বংশধরদের গড়ে তুলছি।
প্রধানমন্ত্রী নতুন বছরে তার সরকারের বিনামূল্যে বই বিতরণের পরিসংখ্যানও তুলে ধরেন। তিনি বলেন, এখন অভিভাবকদের বই কিনতে হয় না। শিক্ষার্থীরা নতুন বছরে নতুন নতুন বই পায়। এই নতুন বইয়ের ঘ্রাণে নতুন বই পড়তে উৎসাহের সৃষ্টি হয়।
সরকারপ্রধান শিক্ষার্থীদের প্রযুক্তি শিক্ষায় গড়ে তুলতে নানা পদক্ষেপের কথাও তুলে ধরেন। তিনি বলেন, আমরা দেশজুড়ে মাল্টিমিডিয়া ক্লাসসহ প্রযুক্তি শিক্ষাদানের ব্যবস্থা করেছি। এ পর্যায়ে তিনি ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তাদের তাদের নিজ নিজ এলাকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে প্রযুক্তি শিক্ষায় অগগ্রতির জন্য ল্যাপটপ ও প্রোজেক্টর উপহার দেওয়ার আহ্বান জানান। প্রধানমন্ত্রী জানান, তিনি নিজের অর্থে তার এলাকায় এভাবে ল্যাপটপ ও প্রোজেক্টর উপহার দিয়েছেন।
তিনি শিক্ষক নিয়োগ ও তাদের চাকরি সরকারিকরণ এবং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তকরণের কথা তুলে ধরেন বক্তৃতায় প্রধানমন্ত্রী। উচ্চশিক্ষা নিশ্চিত করতে সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগে জেলায় জেলায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার কথাও বলেন শেখ হাসিনা।
বক্তৃতা শেষে প্রধানমন্ত্রী শিক্ষাক্ষেত্রে অবদানের জন্য শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে পদক বিতরণ করেন। একইসঙ্গে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিক্ষার্থীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন। পরে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। প্রধানমন্ত্রী এ অনুষ্ঠান উপভোগ করেন।


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ