বিশেষ খবর

নোট বইয়ে ১০ কোটি টাকা কমিশন বাণিজ্য

ক্যাম্পাস ডেস্ক শিক্ষা সংবাদ
img

শিক্ষা খাতে দুর্নীতি বেড়েছে। অনেক প্রতিষ্ঠান ‘স্কুল অ্যান্ড কলেজ’ বা ‘প্রি-ক্যাডেট’ লেখা সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করছে। শুধু নোট ও গাইড বইয়ে ১০ কোটি টাকার কমিশন-বাণিজ্য হচ্ছে।
সাভারে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আয়োজনে, ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) সহায়তায় ও উপজেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে বিভিন্ন সরকারি সেবা প্রদানকারী বিভাগের ওপর গণশুনানির প্রাক্কালে অনুষ্ঠিত এক মতবিনিময় সভায় বক্তারা এসব অভিযোগ করেন। সাভার উপজেলা অডিটরিয়ামে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।
গণশুনানিতে স্থানীয় দৈনিক ফুলকির সম্পাদক নাজমুস সাকিব বলেন, সেবা খাতে দুর্নীতি বেশি হচ্ছে। বেসরকারি হাসপাতালে ডাক্তারের অভাব রয়েছে, কিন্তু রোগীর অভাব নেই। অথচ সরকারি হাসপাতালে ডাক্তারের সংখ্যা তুলনামূলকভাবে বেশি থাকলেও রোগীর সংখ্যা অপর্যাপ্ত। ডাক্তারদের কমিশন-বাণিজ্য বন্ধসহ সরকারি হাসপাতালের যন্ত্রপাতি কার্যকর রাখতে হবে।
তিনি আরো বলেন, শুধু সাভার উপজেলায়ই ১০ কোটি টাকার নোট ও গাইড বইয়ের কমিশন বাণিজ্য হয়। এসব নোট বা গাইড বই বিক্রির ব্যাপারে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানাই। আরেক বক্তা বলেন, একজন গুড় বিক্রেতা যেন ফার্মেসি পরিচালনা করতে না পারে সে ব্যাপারে পদক্ষেপ নিতে হবে। দুর্নীতি সহনীয় মাত্রায় আনতে প্রতিটি ক্ষেত্রে পদ্ধতির পরিবর্তন আনতে হবে। আইনের প্রয়োগ ও বিধি থাকতে হবে।
সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ আবু নাসের বেগের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন ঢাকার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইটি) মোঃ সাজ্জাদ হোসেন, দুদক’র প্রতিরোধ ও গণসচেতনতা বিভাগের পরিচালক মনিরুজ্জামান, উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি শওকত মাহমুদ, সাধারণ সম্পাদক সালাহউদ্দিন খান নঈম, সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) সাভারের সভাপতি অধ্যাপক দীপক কুমার রায়, সনাক সাভারের সাবেক সভাপতি অধ্যাপক আতাউর রহমান, পরিবেশবাদী নেতা রফিকুল ইসলাম মোল্লা ও শামসুল হক প্রমুখ। সাভারের সুধীসমাজ, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী, এনজিও কর্মী, শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ সর্বস্তরের জনগণ এই মতবিনিময় সভায় অংশ নেয়।
সেবা প্রদানকারী বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উদ্দেশ করে দুদক কমিশনার ড. নাসিরউদ্দীন আহমেদ বলেন, ‘জনগণের পক্ষে কাজ করছি। সরকারি কর্মকর্তারা কাজ করছেন কি না সেটা আমরা দেখছি। কাজ না করলে সাহেবদের থাকার দরকার নেই। সেবা দিতে না পারলে বাড়ি চলে যান। ’ দুদক কমিশনার আরো বলেন, ‘আমরা অন্ধকারের মধ্যে আছি। এই অন্ধকারের মধ্যে হাতড়িয়ে আমরা কিছু পাওয়ার চেষ্টা করছি। ’ কমিশনার এ সময় সাভারের ইউএনও মোহাম্মদ আবু নাসের বেগকে ‘আমি ও আমার অফিস দুর্নীতিমুক্ত’ এই কথাগুলো লিখে সব কর্মকর্তার দপ্তরে ঝুলিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেন। একই সঙ্গে স্বাস্থ্যসেবা ও ফার্মেসি ব্যবসায়ীরা সঠিক মানদ- নিয়ে সেবা কার্যক্রম পরিচালনা করছে কি না তা দেখার জন্য ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার নির্দেশ দেন।
উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর সাভারে দুদক’র গণশুনানি অনুষ্ঠিত হয়। সেই গণশুনানির অভিযোগগুলোর অগ্রগতি পর্যালোচনার লক্ষ্যে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে গণশুনানির ফলোআপ অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে সকাল সাড়ে ৯টায় ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের গে-া বাসস্ট্যান্ডে দুর্নীতিবিরোধী মানববন্ধন ও শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হবে।


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ