বিশেষ খবর

জাবিতে নির্মিত হচ্ছে প্রথম ডিএনএ বারকোড গবেষণাগার

ক্যাম্পাস ডেস্ক সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হচ্ছে বাংলাদেশের প্রথম ডিএনএ বারকোড গবেষণাগার। প্রাণীবিদ্যা বিভাগের তত্ত্বাবধায়নে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সহযোগিতা এবং বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে গবেষণাগারটি নির্মাণ করা হচ্ছে। এরই মধ্যে নির্মাণ কাজের অনেকাংশ শেষ হয়ে গেছে। আগামী ৬ মাসের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ গবেষণা কাজ শুরু করা যাবে বলে জানিয়েছেন, গবেষণাগারের উপ-প্রধান কর্মকর্তা অধ্যাপক মোঃ মনোয়ার হোসেন।
তিনি বলেন, সারাবিশ্বে যেসব প্রাণী আছে তন্মধ্যে ৭৫ ভাগই পোকা-মাকড়। আর এই গবেষণাগারে এসব পোকা-মাকড় নিয়ে গবেষণা করা হবে। ডিএনএ পরীক্ষার মাধ্যমে কোন্ পোকা-মাকড় উপকারি আর কোন্টি ক্ষতিকর তা শনাক্ত করা হবে। সাধারণ পোকা-মাকড়ের প্রজাতি-গঠন তাদের রং, পাখা দেখে শনাক্ত করা হয়। যাতে শতভাগ নিশ্চিত হওয়া সম্ভব নয়। কিন্তু ডিএনএ শতভাগ নিশ্চিত হওয়া যাবে। বাংলাদেশে যেসব পোকামাকড় এখনো পর্যন্ত শনাক্ত করা যায়নি, তাদের জিনের মাধ্যমে শনাক্ত করা হবে। এসব পোকা-মাকড়ের ভূমিকা মনোকুলার বা জিন পর্যায়ে গবেষণা করা হবে।
মনোয়ার হোসেন আরও বলেন, ইতোমধ্যে গবেষণারের ল্যাবে বিভিন্ন পোকা-মাকড়ের নমুনা সংগ্রহের কাজ শুরু হয়েছে। দেশের বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে এসব নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছে। এ পর্যন্ত ১২০ প্রজাতির সাধারণ প্রজাপতি, ৪০ প্রজাতির মথ প্রজাপতি এবং ৫০ প্রজাতির ফড়িংয়ের নমুনা সংরক্ষণ করা হয়েছে।
গবেষণাগারের প্রধান কর্মকর্তা ও বিশ্ববিদ্যালয়ের জীব বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক আব্দুল জব্বার হাওলাদার বলেন, এই গবেষণাগারের মাধ্যমে বিশ্বের সব পোকা-মাকড় সম্পর্কে সুস্পষ্ট ধারণা পাওয়া যাবে, যা আমাদের জ্ঞান ভা-ারকে আরো সমৃদ্ধ করবে।


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ