বিশেষ খবর

বাংলাদেশে ডেনিম সেক্টরের সম্ভাবনা নিয়ে বিইউবিটিতে সেমিনার

ক্যাম্পাস ডেস্ক বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়

বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস এন্ড টেকনোলজি (বিইউবিটি) এর ডিপার্টমেন্ট অব টেক্সটাইল স্থায়ী ক্যাম্পাসে ‘প্রসপেক্টস অব ডেনিম সেক্টর ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিইউবিটি ট্রাস্টের সভাপতি এ এফ এম সারওয়ার কামাল এবং সভাপতিত্ব করেন বিইউবিটি’র ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর মোঃ আবু সালেহ। মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন শাশা ডেনিমস লি. এর পরিচালক মোহাম্মদ জামাল আবদুন নাসের।
বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটি অব ফ্যাশন এন্ড টেকনোলজি (বিইউএফটি)’র প্রো ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. ইঞ্জিনিয়ার আইয়ূব নবী খান, বিইউবিটি’র ট্রেজারার প্রফেসর মোঃ এনায়েত হোসেন মিয়া এবং বিইউবিটি’র প্রক্টর প্রফেসর মিঞা লুৎফার রহমান। সেমিনার আয়োজনের প্রধান তত্ত্বাবধায়ক ছিলেন ড. মোহাম্মদ রুবাইয়্যাৎ চৌধুরী, প্রফেসর ও চেয়ারম্যান, ডিপার্টমেন্ট অব টেক্সটাইল, বিইউবিটি এবং ডিন ফ্যাকাল্টি অব ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড অ্যাপলায়েড সায়েন্সেস, বিইউবিটি।
বিইউএফটি’র প্রো ভিসি প্রফেসর ড. আইয়ূব নবী খান বলেন, বাংলাদেশি ডেনিমের দারুণ ভবিষ্যৎ রয়েছে। তবে আমাদের দক্ষ ইঞ্জিনিয়ার নেই। তিনি শিক্ষার্থীদের ভাল ইঞ্জিনিয়ার হবার পরামর্শ দেন যেন তারা সহজে বিদেশি প্রতিযোগীদের সঙ্গে পেরে ওঠে।
ডেনিমের মজার ইতিহাস বর্ণনা করে বিইউবিটি ট্রাস্টের সভাপতি এ এফ এম সারওয়ার কামাল বলেন, বাংলাদেশে ডেনিম সেক্টরে বিরাট গ্যাপ রয়েছে। বিইউবিটি শিক্ষার্থীরা এই গ্যাপ পূরণ করতে পারলে দেশের সামগ্রিক তৈরি পোশাক শিল্পের জন্য ভাল হবে।
বিইউবিটি’র ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর মোঃ আবু সালেহ বলেন, আমরা শিক্ষার্থীদের তৈরি কাজগুলো প্রদর্শনের জন্য নতুন ভবনে একটি রুম তৈরি করব। বিইউবিটি শিক্ষার্থীদের দেশের টেক্সটাইল খাতের উন্নয়নে অবদান রাখার ব্যাপারে দায়িত্ব রয়েছে।
অতিথিরা শিক্ষার্থীদের তৈরি বিভিন্ন টেক্সটাইল পণ্য দিয়ে সাজানো বিইউবিটি টেক্সটাইল বিভাগের মার্চেন্ডাইজিং ইউনিটের প্রদর্শনী উদ্বোধন শেষে ঘুরে দেখেন। প্রতিযোগিতায় সেরা পারফরমারদের এবং টেক্সটাইল ট্যালেন্ট সার্চ, সিজন-২ বিজয়ীদের সেমিনার শেষে ক্রেস্ট ও পুরস্কার দেয়া হয়। অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিইউবিটি’র রেজিস্ট্রার, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক, ক্যারিয়ার গাইডেন্স পরিচালক, বিভাগীয় চেয়ারম্যানবৃন্দ, শিক্ষক, কর্মকর্তা ও শিক্ষার্থীবৃন্দ।


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ