বিশেষ খবর

ক্যাডেট কলেজ স্টাইলে নিবেদিত ফরিদ ভূইয়া একাডেমি

ক্যাম্পাস ডেস্ক প্রতিবেদন
img

ত্যাগী সমাজসেবী, শিক্ষার একনিষ্ঠ পৃষ্ঠপোষক, শিল্প-বাণিজ্যের পুরোধা, বীর মুক্তিযোদ্ধা ফরিদ আহমেদ ভূইয়া নিজ জন্মস্থান রামগঞ্জের উদয়পুরে প্রতিষ্ঠা করেন ব্যতিক্রম ধারার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ফরিদ আহমেদ ভূইয়া একাডেমি। সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক অনুমোদিত এ প্রতিষ্ঠানটি ২০১৮ সাল থেকে নিম্ন মাধ্যমিক পর্যায়ে (৬ষ্ঠ-৮ম) শ্রেণিতে পাঠদান শুরু করেছে। শিক্ষার গুণগত মান বৃদ্ধি, প্রযুক্তি নির্ভর শিক্ষার মানোন্নয়ন এবং মাতৃস্নেহে কোমলমতি শিশুদের পাঠদানের লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে এ প্রতিষ্ঠানটি।
৩৫ বিঘা জমির উপর ৭ তলা একাডেমিক ভবন, ছাত্র/ছাত্রী, শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের পৃথক পৃথক আবাসিক ভবন এবং আধুনিক খেলার মাঠসহ মনোরম পরিবেশ বিদ্যমান রয়েছে। পাঠ্যপুস্তকসহ সকল শিক্ষা-উপকরণ কলেজ থেকে দেয়া হয়। গরিব, মেধাবী ও জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের বিনাখরচে লেখাপড়া ও থাকা-খাওয়ার সুযোগ আছে। প্রকল্প সম্পর্কে ট্যাক্স-ভিআইপি ফরিদ আহমেদ ভূইয়া বলেন- ক্যাডেট কলেজ স্টাইলের এ শিক্ষায়তনে বিশ্বমান বজায় রেখে বহুমুখী মেধার বিকাশ ঘটানো হবে।
একাডেমির শিক্ষা কার্যক্রম পদ্ধতিসমূহ
- ছাত্র-ছাত্রীদেরকে নিজ দায়িত্বে অথবা অভিভাবকদের তত্ত্বাবধানে একাডেমিতে আসা-যাওয়া করতে হয়।
-সকাল ৬টা ৩০ মিনিটের মধ্যেই ছাত্র-ছাত্রীদের একাডেমিতে প্রবেশ করতে হয়।
- সকাল ৬টা ৩৫ মিনিট থেকে ৬টা ৪৫ মিনিট পর্যন্ত জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়।
- সকাল ৭টা থেকে ৯টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত বিষয়ভিত্তিক ক্লাস চলে।
- সকাল ৯টা ৩০ মিনিট থেকে ১০টা পর্যন্ত টিফিন ব্রেক থাকে।
- সকাল ১০টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত পুনরায় বিষয়ভিত্তিক ক্লাস চলে।
- দুপুর ১২টা ৩০ মিনিট থেকে ১টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত দুপুরের খাবার ও বিশ্রামের সময় দেয়া হয়।
- দুপুর ১টা ৩০ মিনিট থেকে ৩টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত শ্রেণিকক্ষে বিশেষ পাঠ প্রস্তুতি চলে।
- বিকাল ৩টা ৩০ মিনিট থেকে ৪টা ১০ মিনিট পর্যন্ত ছাত্র-ছাত্রীরা একাডেমির মাঠে খেলাধুলায় অংশগ্রহণ করে।
- বিকাল ৪টা ১০ মিনিট থেকে ৪টা ৩০ মিনিটের মধ্যে বিকালের নাস্তা সম্পন্ন করা হয়।
-ছাত্র-ছাত্রীদের সকল বইপত্র একাডেমিতেই সংরক্ষিত থাকে।
-বিকাল ৪টা ৩০ মিনিটে সকল ছাত্র-ছাত্রী বাসার উদ্দেশ্যে রওনা হয় এবং রাত ৯টার মধ্যেই অভিভাবকগণ একাডেমিতে অধ্যয়নরত ছাত্র-ছাত্রীর ঘুমানোর ব্যবস্থা করবেন, যাতে শিক্ষার্থীরা পরদিন যথাসময়ে একাডেমিতে উপস্থিত হতে পারে।
একাডেমির বৈশিষ্ট্যসমূহ
- পরিকল্পিত পাঠ্যসূচি এবং ক্লাসের পড়া ক্লাসেই শেষ।
- দক্ষ ও প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত শিক্ষকমন্ডলীর তত্ত্বাবধানে পাঠদান।
-ছাত্র-ছাত্রীদের পড়াশোনা সম্পর্কে আগ্রহী করে তোলা এবং আনন্দের সাথে পাঠদান।
-সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ।
- দুর্বল শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ পাঠদানের ব্যবস্থা।
-শিক্ষাক্ষেত্রে সুস্থ বিনোদনের ব্যবস্থা।
-আধুনিক খেলার মাঠে খেলার সুব্যবস্থা।

সহ-শিক্ষা কার্যক্রম
প্রতি বৃহস্পতিবার শিক্ষার্থীদেরকে বৈকালিক খেলাধুলার পর শিক্ষামূলক প্রামাণ্যচিত্র ও ফিল্ম দেখানো হয় এবং পাশাপাশি অন্যান্য সহ-শিক্ষা কার্যক্রমেও অংশগ্রহণ করানো হয়।
ফি ও অন্যান্য চার্জ
ছাত্র-ছাত্রীদের একাডেমির নিয়ম অনুযায়ী ভর্তি ফি, মাসিক বেতন ও খাবারের চার্জ প্রদান করতে হয়। মাসিক বেতন ও খাবারের চার্জ ভর্তির সময়ে জানিয়ে দেয়া হয়। একাডেমির উন্নয়ন, রক্ষণাবেক্ষণ ও সহ-শিক্ষা কার্যক্রম ব্যয় আহমেদ আবদুর রহমান ট্রাস্ট বহন করে, যা কোনো ক্রমেই ছাত্র-ছাত্রীদের অভিভাবক থেকে গ্রহণ করা হয় না।
জ্ঞাতব্য বিষয়
ব্যতিক্রমধর্মী এই একাডেমিতে নিম্ন মাধ্যমিক স্তরের শিশুদের উন্নত বিশ্বের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে মানসম্মত শিক্ষা ও সুষম খাবারের (টিফিন, দুপুরের খাবার এবং বিকালের নাস্তা) সুব্যবস্থা করা হয়। উল্লেখ্য, শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে মাসিক বেতন, খাবার খরচ ও ইউনিফর্ম ব্যতিত অন্যান্য আনুষঙ্গিক সকল খরচ আহমেদ আবদুর রহমান ট্রাস্ট বহন করে। অভিভাবকগণ তাদের সন্তানদেরকে একাডেমি থেকে ক্লাস কার্যক্রম শেষে বাড়িতে ফেরার পর তাদের পড়াশোনার বিষয়ে খবর নেয়ার পাশাপাশি সামাজিক ও নৈতিক শিক্ষার বিষয়ে প্রাথমিক ধারণা দিতে হবে। যাতে একজন শিক্ষার্থী সামাজিক ও নৈতিক বিষয়ে প্রাথমিক ধারণা গ্রহণ করতে পারে। তাহলেই শিশুটি পুঁথিগত, সামাজিক ও নৈতিক শিক্ষা গ্রহণের মাধ্যমে প্রকৃত শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে ভবিষ্যতে সমাজ গঠনে ভূমিকা রাখতে পারবে।
যোগাযোগ
ফরিদ আহমেদ ভূইয়া একাডেমি (রুম ৩০১)
উদয়পুর, রামগঞ্জ, লক্ষ্মীপুর।
মোবাইলঃ ০১৭০৮-৫১৫৩৩৫ (অধ্যক্ষ) ই-মেইলঃ faridaba2017@gmail.com ওয়েবসাইটঃ www.faba.edu.bd


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ