বিশেষ খবর

দেশের জনসংখ্যা ৩২ জন

ক্যাম্পাস ডেস্ক ব্যতিক্রমী সংবাদ

কোনো কোনো দেশের পরিচিতি গড়ে ওঠে দেশটির দুনিয়াজোড়া খ্যাতির সুবাদে। আবার কোনো দেশ সম্পূর্ণ বিপরীত কারণে নিজের পরিচিতি গড়ে তোলে। যেমন ‘মোলোশিয়া’। এটিই সম্ভবত পৃথিবীর সবচেয়ে স্বল্প পরিচিত দেশ। যুক্তরাষ্ট্রের নেভাদা অঙ্গরাজ্যের ডেটন এলাকায় অবস্থিত এই দেশটিকে বিশ্বের কোনো দেশ অথবা জাতিসংঘ স্বীকৃতি দেয়নি। কিন্তু তাতে কী? এটির রয়েছে নিজস্ব মুদ্রা, ভাষা, জাতীয় সঙ্গীত, পোস্ট অফিস, ব্যাংক, পতাকা এবং প্রেসিডেন্ট। এই দেশের প্রেসিডেন্টকে একবার বড়দিনের শুভেচ্ছা বার্তা পাঠিয়েছিলেন খোদ মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। মোলোশিয়ার আয়তন মাত্র ৬.৩ একর। আর জনসংখ্যা মাত্র ৩২ জন। ১৯৭৭ সালে মার্কিন নাগরিক কেভিন বাও ঠিক করেন তিনি একটি দেশ তৈরি করবেন। যে কথা সেই কাজ। কেভিন বাও তার কয়েকজন বন্ধুকে সঙ্গে নিয়ে লেগে পড়েন বাড়ির আশপাশের ঝোপঝাড় পরিষ্কারের কাজে। ডেটনের কিছু মরুভূমি আর পাহাড় কেটে বের করেন ৬ দশমিক ৩ একর জমি। দেশের নাম দেয়া নিয়ে ধন্দে পড়েন। পরে স্পেনিশ ভাষার শব্দ ‘মোলোশিয়া’ নামটি তার মনে ধরে। দেশের নামও রাখেন মোলোশিয়া। স্পেনিশ ভাষায় এই শব্দটির অর্থ পাহাড়ঘেরা পাথুরে জমি। দেশের নাম ঠিক করার পর কেভিন বাও নিজেই দেশটির প্রেসিডেন্টের পদ নেন। দেশটির আয়ের প্রধান উৎস পর্যটন। বিশ্বের বেশিরভাগ লোক এই দেশের অস্তিত্বের কথা জানে না। অবশ্য আইনত এই দেশটির আলাদা পরিচিতি নেই। মার্কিন প্রশাসন কোনো দিনই এই দেশের সার্বভৌমত্ব স্বীকার করেনি। কিন্তু কেভিন মনে করেন, মার্কিন প্রশাসন একদিন ঠিকই তার দেশকে স্বীকৃতি দেবে।


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ