বিশেষ খবর

৯৪ বছরে স্নাতক ডিগ্রি!

ক্যাম্পাস ডেস্ক ব্যতিক্রমী সংবাদ
img

বয়স বাড়লেও, মনের দিক থেকে বাড়েনি। শিক্ষার প্রতি দুর্বলতারও কমতি নেই। বুড়ো বয়সেও শিক্ষার প্রতি অনুরাগ কমেনি। হৃদয় মনে যার ছাপ পড়েনি। তবুও এগিয়ে চলা।
নাতি-নাতনি এমনকি তারও ছেলে মেয়েদের সঙ্গে পরীক্ষা দিতে পিছপা হননি। অবশেষে ৯৪ বছরে ডিগ্রি নিলেন। এনিয়ে কৌতূহলেরও কমতি ছিলো না। এমনই এক ঘটনা ঘটেছে মার্কিন মুল্লুকের ভার্জিনিয়ায়।
ওয়েস্ট ভার্জিনিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রি নিতে চলেছেন জনৈক মার্কিন নাগরিক। তার নাম অ্যান্টনি ব্রুটো।
১৭মে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাঁর হাতে ডিগ্রি তুলে দেন। ভার্জিনিয়ার শহর মরগ্যানটাউন। সেখানকারই বাসিন্দা অ্যান্টনি ব্রুটো। ১৯৩৯ সালে ওয়েস্ট ভার্জিনিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে ইঞ্জিনিয়ারিং পড়তে ভর্তি হন তিনি।
সঙ্গে ছিল শারীরবৃত্তি এবং ইন্ডাস্ট্রিয়াল আর্টসের (শিল্প সংক্রান্ত আঁকা) মতো বিষয়ও। ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে প্রথমে পড়াশোনা করলেও ব্রুটোর মনে হয়, সে বিষয়ে তিনি যথেষ্ট পারদর্শী নন। এমনকি তাকে সাহায্য করার মতোও কেউ ছিল না। তাই বিষয়ে বদলে শারীরবৃত্তি এবং ইন্ডাস্ট্রিয়াল আর্টসকেই বেছে নেন তিনি।
বেশ চলছিল ঠিকঠাক। আর কিছু দিনের মধ্যেই স্নাতকও হয়ে যেতেন ব্রুটো। কিন্তু ছেদ পড়ল মাঝ পথে। ১৯৪২ সালে বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়তে বাধ্য হন তিনি। তাঁকে যোগ দিতে হয় দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সেনা বাহিনীতে।
তখন ভেনিস এবং ফ্লোরিডায় বহু সময় কাটিয়েছেন তিনি। মূলত বিমানের দেখাশোনার দায়িত্ব ছিল তাঁর ওপর। বিশ্ববিদ্যালয়ে এক সময়ে যা শিখেছিলেন, সেটাই তখন গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠল ব্রুটোর কাছে।
তারপর যুদ্ধ শেষ হয়েছে। কিন্তু ব্রুটোর শুরু হয়েছে আর এক জীবন-যুদ্ধ। স্থানীয় একটি সিমেন্ট কারখানায় বাবা এবং ভাইদের সঙ্গে কাজ শুরু করেন তিনি।
কারখানার ভেঁপুর সঙ্গে তাল মিলিয়ে কাজ করে গেলেও ব্রুটোর মন কিন্তু পড়ে রইল বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাসঘরে। তাই ১৯৪৬ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ে আবার ভর্তি হলেন তিনি।
আর এ বার মনস্থির করেই ফেললেন যে স্নাতক না হওয়া পর্যন্ত তিনি ছাড়বেন না। কিন্তু সে ইচ্ছেও পূরণ হল না ব্রুটোর। অসুস্থ স্ত্রীর দেখ ভাল করার জন্য পড়াশোনায় ছেদ পড়ে তাঁর।
পশ্চিম ভার্জিনিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের পেশকরা মিডিয়া বিজ্ঞপ্তিতে তিনি বলেছেন, আমার কাছে সব সময়ই স্নাতক হওয়া গুরুত্বপূর্ণ ছিল। তিনি কী এবার স্নাতকোত্তর ডিগ্রি পাওয়ার জন্য চেষ্টা করবেন? এই প্রশ্নের উত্তরে ৯৪-এর চনমনে যুবক ব্রুটো জানিয়েছেন, আপাতত কিছুদিন তিনি বিশ্রামে থাকাই পছন্দ করবেন।


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ