ইংল্যান্ডে পড়াশোনা করবেন আর তার উপর মাসে মাসে পাবেন..." /> কমনওয়েলথ স্কলারশিপ || মাসে ২লাখ টাকা সমমানের বৃত্তি
বিশেষ খবর

কমনওয়েলথ স্কলারশিপ || মাসে ২লাখ টাকা সমমানের বৃত্তি

ক্যাম্পাস ডেস্ক বৃত্তি
img

ইংল্যান্ডে পড়াশোনা করবেন আর তার উপর মাসে মাসে পাবেন প্রায় ২ লাখ টাকা! ভাবতে পারছেন! কমনওয়েলথ স্কলারশিপ কমিশন ইন ইউনাইটেড কিংডম (সিএসসি) দিচ্ছে আপনাকে এই অফার। উন্নয়নশীল দেশগুলোর মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্য দেয়া হচ্ছে এ স্কলারশিপ। সাধারণত মাস্টার্স কোর্সে ১ বছরের জন্য এ বৃত্তি পাবেন সিএসসি এর সাথে যুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীরা।


বিষয়
সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীর নিজের দেশের উন্নতির খাতের সাথে সম্পর্কিত বিষয়াবলি।


যোগ্যতা
- কমনওয়েলথভুুক্ত দেশের নাগরিক, শরণার্থী অথবা ব্রিটিশ প্রটেক্টেড
- উন্নয়নশীল কমনওয়েলথভুক্ত দেশের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে
- টক একাডেমিক বর্ষ সেপ্টেম্বর/ অক্টোবর ২০১৫ এ পড়াশোনা শুরু করতে হবে
- অক্টোবর ২০১৫ এর মধ্যে আপার সেকন্ড ক্লাস অনার্স স্ট্যান্ডার্ড এ প্রথম শ্রেণির ডিগ্রি থাকতে হবে
- উন্নত দেশের কোনো একটিতে এক বছর বা তার বেশি সময় পড়াশোনার ইতিহাস থাকা যাবে না
- ইংল্যান্ডে পড়াশোনার খরচ চালাতে অক্ষম এমন শিক্ষার্থী
- বৃত্তির ক্ষেত্রে সব ধরনের সমতা বজায় থাকবে (লিঙ্গ বৈষম্য, সাংস্কৃতিক বৈষম্য ইত্যাদি)
সুবিধাসমূহ
- বিমানের ভাড়া (বিশ্ববিদ্যালয় এবং নিজ দেশের মাঝে)
- টিউশন এবং পরীক্ষার ফি
- ব্যক্তিগত চলার জন্য মাসে মাসে ৯৭৭ পাউন্ড (১ লাখ ১৫ হাজার টাকা), লন্ডন মেট্রোপলিটন এলাকার আওতাভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়লে ১২০৮ পাউন্ড (১ লাখ ৪২ হাজার ২০০)
- গবেষণামূলক প্রবন্ধ লিখার জন্য ২২৫ পাউন্ড (২৬ হাজার ৫০০ টাকা)
- প্রাথমিকভাবে পৌঁছানোর পর পরই নির্দিষ্ট অংকের টাকা
- বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়ন ভ্রমণের জন্য ২০০ পাউন্ড (২৩ হাজার ৬০০ টাকা)
- নিজ দেশে ফেরার সময় অতিরিক্ত ১০ কিলোগ্রাম লাগেজ খরচ দেয়া হবে (বইয়ের জন্য)


আবেদন করবেন যেভাবে
অধ্যয়নরত বিশ্ববিদ্যালয়ের মাধ্যমে আবেদন করতে হবে। প্রশাসন থেকে খোঁজ রাখতে হবে তারা কিভাবে আবেদন গ্রহণ করবে এবং শেষ তারিখ কবে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন যোগ্য ছাত্র বাছাই করবে এবং পরবর্তীতে সিএসসিতে ওই শিক্ষার্থীর জন্য আবেদন করবে। ইলেকট্রনিক এপ্লিকেশন সিস্টেমের মাধ্যমে তারা আবেদন করবে। দুইভাবে শিক্ষার্থী আবেদন করতে পারবে-
* বিশ্ববিদ্যালয়ের মাধ্যমেঃ এক্ষেত্রে শিক্ষার্থীকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফর্ম নিয়ে আবেদন করতে হবে। শিক্ষার্থী নির্বাচিত হলে প্রশাসন শিক্ষার্থীকে জানিয়ে দেবে এবং পরবর্তীতে সিএসসি বরাবর আবেদন করবেন তিনি। এক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয়ের হস্তক্ষেপ ছাড়া অগ্রসর হলে তা গ্রহণযোগ্য হবে না।
* শুধুমাত্র ইলেকট্রনিক এপ্লিকেশন সিস্টেমের মাধ্যমেঃ ঠিক একই সময়ে ইলেকট্রনিক এপ্লিকেশন সিস্টেমের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয় এবং সিএসসি বরাবর আবেদন করতে পারবে। নির্দিষ্ট তারিখের পর জমা দিলে তা গ্রহণ করা হবে না।


আবেদনের শেষ তারিখ
ইলেকট্রনিক এপ্লিকেশন সিস্টেমে জমা দেয়ার শেষ তারিখ ১৬ এপ্রিল, ২০১৫। এর আগেই আপনাকে সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের শেষ তারিখ কবে জেনে নিয়ে আবেদন করে ফেলতে হবে।
আরো বিস্তারিত জানুন ক্লিক করুন-
http://cscuk.dfid.gov.uk/apply/shared-scholarships/info-candidates/.


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ