বিশেষ খবর

ক্যাম্পাস পরিচালিত ফ্রি সেমিনার Khow Thyself

ক্যাম্পাস ডেস্ক ক্যাম্পাস’র অনুষ্ঠান

২৫ আগস্ট অনুষ্ঠিত হয় ক্যাম্পাস পরিচালিত ফ্রি সেমিনার অন প্রোএকটিভ এন্ড পজিটিভ এটিচিউড এর ২৬তম পর্ব। ক্যাম্পাস অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত উক্ত সেমিনারের বিষয় ছিল Know Thyself অর্থাৎ নিজেকে জানো।
ক্যাম্পাস পত্রিকার সম্পাদক এবং ক্যাম্পাস সোস্যাল ডেভেলপমেন্ট সেন্টার (সিএসডিসি) এর মহাসচিব এম হেলালের সঞ্চালনায় সেমিনারের মুখ্য বক্তা ছিলেন প্রোএকটিভ এটিচিউড আন্দোলনের প্রাণপুরুষ ও গবেষক ড. আলমাসুর রহমান। সেমিনারে উপস্থিতদের অধিকাংশই ছিল বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের ছাত্র-যুবক। এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সরকারের চৌকস সচিব ও ট্যারিফ কমিশনের চেয়ারম্যান ড. আজিজুর রহমান।

ড. আলমাসুর রহমান
ড. আলমাসুর রহমান বলেন, জগৎ বিখ্যাত দার্শনিক সক্রেটিস বলেছেন- Know Thyself নিজেকে জানো। নিজেকে না জানলে আত্মোন্নয়ন ঘটবে না, মানুষ হতে পারবে না। ড. আলমাস বলেন- মানুষ যদি তার ভেতরের শক্তি সম্পর্কে না জানে, তাহলে সে এগোতে পারবে না। একটা মানুষ লটারিতে ১ কোটি টাকা পেয়েছে এবং এ টাকা সম্পর্কে সে অবগত। এক্ষেত্রে সে পরিকল্পনা করতে পারবে ভবিষ্যত জীবন কীভাবে অর্থনৈতিক সচ্ছলতায় কাটানো যায়। আর যদি তিনি টাকা সম্পর্কে অবগত না হতেন, তাহলে পরিকল্পনা করতে পারতেন না। ঠিক তেমনি মানুষ যদি না জানে তার ভেতরে কী অফুরন্ত ক্ষমতা-যোগ্যতা রয়েছে, তাহলে সে জীবনের পরিকল্পনা কীভাবে করবে; কীভাবে জীবনকে সুন্দর করে সাজাবে? তাই আমাদের জানতে হবে আমি কে। আমার ভেতরে কত শক্তি রয়েছে।
ড. আলমাস বলেন, বিজয়ী ও সফল হবার জন্য স্রষ্টা মানুষকে সৃষ্টি করেছেন। স্রষ্টা সবকিছু মানুষের জন্যই সৃষ্টি করেছেন। কিন্তু আমরা নিজেদেরকে চিনি না বা জানি না বলে নিজ অবস্থার পরিবর্তন করতে পারি না। তাই বিজয়ী ও সফল হতে হলে নিজকে জানতে হবে। নিজ অবস্থার পরিবর্তন করতে হলে নিজেকেই উদ্যোগী হতে হবে। তবে মানুষের অবস্থার পরিবর্তন হবে না, যদি তার চিন্তার পরিবর্তন না হয়। চিন্তার গতিপথ পরিবর্তন করে মানুষ জীবনের গতিপথ পরিবর্তন করতে পারে। তাই আমাদেরকে ভালো ও গঠনমূলক চিন্তা করতে হবে। ব্রেন থেকে Negative Thought সরিয়ে দিতে পারলে সাফল্যের সড়ক অবারিত হবে, স্থাপিত হবে নতুন নতুন মাইলফলক। জীবনকে সাফল্যের সড়কে তুলে দিতে হলে তিন অক্ষরের একটি শব্দের প্রতি খেয়াল রাখতে হবে; তা হলো- ADA. A for Ambition -যা মানুষকে স্বপ্ন দেখাবে, আত্মশক্তি জাগ্রত করবে, আত্মবিশ্বাসে বলীয়ান করবে; D for Decision-যা চয়েস বা পরিকল্পনা করার উৎসাহ যোগাবে, সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে যোগাবে শক্তি; A for Action-সিদ্ধান্তের বাস্তবায়ন। এ ৩টি জিনিস সঠিকভাবে প্রয়োগ করলে মানুষ ব্যর্থ হতে পারে না।
সফলতার উদাহরণ টেনে ড. আলমাস বলেন, বিশ্বসেরা মার্কিন ধনী বিল গেট্স বলেছেন- I was right man in the right place. আমার সাথে আরও অনেকে ছিলেন, কিন্তু আমার মতো তাদের উদ্দেশ্য ছিল না বলে তারা কেউ শেষ পর্যন্ত সফল হননি। তাদের Ambition ছিল, Decision নিয়েছিলেন; কিন্তু Action এ যেতে পারেননি। তাই তারা Race থেকে ছিটকে পড়েছেন। শেষঅংকে বিজয়মাল্য আমার গলায়ই শোভা পেয়েছে। অন্য উদাহরণ উপস্থাপন করে ড. আলমাস বলেন, পর্বতারোহী এডমন্ড হিলারী প্রথমবার হিমালয়ের এভারেস্টের পাশের চূড়ায় পৌঁছেছিলেন; কিন্তু দ্বিতীয়বার পৌঁছেছিলেন সর্বোচ্চ চূড়ায়। তিনি এভারেস্টকে লক্ষ্য করে বলেছিলেন- তোমার যত বড় হবার তা হয়ে গেছো, আর তোমার বড় হবার সুযোগ নেই। কিন্তু আমি মানুষ এডমন্ড হিলারী; আমার বড় হবার সুযোগ শেষ হয়নি, আমি বড় হতেই থাকব!
ড. আলমাস বলেন- আমি পারি, আমি পারব -এ বিশ্বাস না থাকলে সফল হওয়া যাবে না। চাঁদে যাওয়া সম্ভব হয়েছে যখন মানুষ চাঁদে যেতে দৃঢ়চিত্ত হয়েছে। ভারতের শ্রেষ্ঠ ধনী রিলায়েন্স গ্রুপের মালিক মুকেশ আম্বানী প্রেট্রোল পাম্পের কর্মী ছিলেন, তিনি এ আশা পোষণ করেছিলেন- তিনি শুধু পেট্রোল পাম্পের মালিক হবেন না, তিনি বিশাল তেল কোম্পানির মালিক হবেন; বাস্তবেও তিনি তাই হয়েছেন।
ড. আলমাসুর রহমান বলেন, স্রষ্টা একমাত্র মানুষকেই Choose করার ক্ষমতা দিয়েছেন; পশু-পাখিদের এ ক্ষমতা দেননি। ক্ষুধার্ত বাঘ-সিংহ ঘাস খাবে না, কারণ তার চয়েসের মধ্যে ঘাস পড়ে না। কিন্তু মানুষ যা Choose করবে, তা-ই পাবে। তাই আপনাদেরকে Choosey হতে হবে। তাহলে আপনি সফল হবেনই। কেননা আপনি পরাজিত কিংবা ব্যর্থ হবার জন্য জন্মাননি। আপনি জন্মেছেন সফল হবার জন্য। You are not the victim, You are the victor. মেধা-বুদ্ধি-জ্ঞান ও চয়েস দিয়ে স্রষ্টা আপনাকে সৃষ্টি করেছেন -আপনি ব্যর্থ হবেন কেন! ড. আলমাস বলেন- We can’t change our past, but we can change our future. তবে আমাদের থাকতে হবে Right choice.

এম হেলাল
অনুষ্ঠানের সঞ্চালক এম হেলাল বলেন, ক্যাম্পাস পরিচালিত জনকল্যাণমুখী নানা কর্মসূচির অন্যতম হলো ফ্রি সেমিনার অন প্রোএকটিভ এন্ড পজিটিভ এটিচিউড। হতাশা, রিএকটিভ ও নেগেটিভ এটিচিউড দূর করে আত্মশক্তি ও সৃজনশীলতা বিকাশের মাধ্যমে বিশ্বসেরা জাতি গঠনে ক্যাম্পাস ছাত্র-তরুণদের মধ্যে ছড়িয়ে দিচ্ছে প্রোএকটিভ ও পজিটিভ এটিচিউডের দুর্বার চেতনা। আশা করি, উপস্থিত ছাত্র-তরুণরা আজকের সেমিনারের বিষয়বস্তু উপলব্ধি করে নিজের ভেতরের শক্তিকে জাগ্রত করবে। তারা জানবে- I am Great, I am Genious -এ চেতনা ধারণ করে তারা পৌঁছে যাবে বিশ্বশীর্ষ আসনে।
তিনি বলেন, প্রোএকটিভ এন্ড নেগেটিভ দু’টি আচরণের সুযোগ থাকলেও সৃষ্টির সেরা হিসেবে আমাদেরকে সর্বদা প্রোএকটিভ ও পজিটিভ আচরণ করতে হবে। তাতে আমরা বিশেষ মানুষে পরিণত হব। ক্যাম্পাস পরিচালিত পরবর্তী প্রোএকটিভ সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে ২৬ নভেম্বর বৃহস্পতিবার, বিকাল ৪-৩০ মিঃ। সেমিনারের বিষয় Key to Success..
সেমিনার শেষে ড. আলমাসুর রহমানের হাতে ক্যাম্পাস’র শুভেচ্ছা উপহার তুলে দেন বাংলাদেশ সরকারের সচিব ড. আজিজুর রহমান।


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ