বিশেষ খবর

শিক্ষার গুণগত মানোন্নয়ন অতীব জরুরি -রাষ্ট্রপতি

ক্যাম্পাস ডেস্ক সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়

দেশীয় ও আন্তর্জাতিক চাহিদা পূরণে শিক্ষাব্যবস্থার গুণগত মানোন্নয়ন অতীব জরুরি বলে মনে করেন রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ। তিনি বলেন, আমাদের শিক্ষাব্যবস্থাকে আজ ও আগামী দিনের দেশীয় ও আন্তর্জাতিক চাহিদা পূরণে আরও সময় উপযোগী, বিজ্ঞানভিত্তিক করে তুলতে হলে এর গুণগত মানোন্নয়ন অতি জরুরি বলে আমি মনে করি।
সম্প্রতি ‘জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ-২০১৬’ এর সমাপনী অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি আরও বলেন, শিক্ষা হতে হবে কল্যাণধর্মী, বিজ্ঞানমুখী ও বাস্তবসম্মত। নিছক জ্ঞান দান শিক্ষার উপজীব্য হতে পারে না। শিক্ষার্থীকে বিকশিত করে তোলাই হবে শিক্ষার মূল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য।
শিক্ষা মানুষের মৌলিক অধিকার- একথা উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি বলেন, এই মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করতে সরকারের মূল দায়িত্ব হচ্ছে অবকাঠামোসহ অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করা। আর নাগরিক হিসেবে আমাদের দায়িত্ব হচ্ছে এসব সুযোগ-সুবিধাকে কাজে লাগিয়ে নিজেদেরকে একটি শিক্ষিত জাতি হিসেবে গড়ে তোলা। শিক্ষা কেউ কাউকে দিতে পারে না- এটা অর্জন করতে হয়। তাই আমি দেশের প্রতিটি নাগরিকের প্রতি বিনীত অনুরোধ জানাব, আপনারা আপনাদের ছেলে-মেয়েদেরকে শিক্ষিত করে তুলুন- তাদের সম্পদে পরিণত করুন, তা হলেই দেশ এগিয়ে যাবে। শিক্ষার্থীদের নেতৃত্বের গুণাবলী অর্জনের আহ্বান জানিয়ে রাষ্ট্রপতি বলেন, আগামী দিনে তোমরাই দেশের হাল ধরবে, দেশকে নেতৃত্ব দিবে। তাই লেখাপড়ার পাশাপাশি তোমাদেরকে নেতৃত্বের গুণাবলী অর্জন করতে হবে। নিজের দেশকে জানতে হবে।
অনুষ্ঠানে শিক্ষা সপ্তাহ উপলক্ষে আয়োজিত বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের উদ্দেশ্যে রাষ্ট্রপতি বলেন, তোমরা যারা জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ নির্বাচিত হয়েছো, তোমরাই এ দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তান। বাংলাদেশের সব শিক্ষার্থীর মধ্যে তোমাদের আলোকধারা ছড়িয়ে দাও। একটি জ্ঞানবান, গুণবান, নীতিবান, উদ্যমী ও সৃজনশীল ভবিষ্যত প্রজন্ম গড়ার কাজে তোমরা অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে।
রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে ওই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন শিক্ষা সচিব সোহরাব হোসাইন এবং মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ফাহিমা খাতুন। অনুষ্ঠানে শিক্ষা সপ্তাহ-২০১৬ উপলক্ষে আয়োজিত বিভিন্ন ক্যটাগারিতে ৮৯ জনকে পুরস্কৃত করা হয়। তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন রাষ্ট্রপতি। পরে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে একটি সংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন তিনি।


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ