বিশেষ খবর

শিক্ষাক্ষেত্রে ব্যবসায়ীদেরও এগিয়ে আসতে হবে -শিক্ষামন্ত্রী

ক্যাম্পাস ডেস্ক সংবাদ
img

সব ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি ব্যবসায়ীদেরকেও শিক্ষার দায়িত্ব নেয়া কর্তব্য বলে মনে করেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। তিনি বলেন, জনগণের অর্থে ব্যাংক মুনাফা করে, আবার তার একটি অংশ শিক্ষাখাতে ব্যয় করছে। এভাবে ব্যবসায়ীদেরও এ দায়িত্ব নেয়া কর্তব্য। কারণ সব শিক্ষার দায়িত্ব সরকার বহন করে না।
সম্প্রতি ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি, বসুন্ধরায় (আইসিসি,বি) প্রাইম ব্যাংক ফাউন্ডেশনের শিক্ষা সহায়তা কর্মসূচির আওতায় শিক্ষাবৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বেসরকারি খাতের সহযোগিতা ছাড়া সরকারের একার পক্ষে শতভাগ শিক্ষা নিশ্চিত করা সম্ভব নয়। বিশ্বের কোনো দেশেই বেসরকারি খাতের সমর্থন ছাড়া এটা সম্ভব হয়নি। আমাদের মতো দেশেও বিশাল সংখ্যক শিক্ষার্থীর লেখাপড়ার দায়িত্ব নেয়া কোনো সরকারের পক্ষেই সম্ভব নয়। বিশ্বের অন্যান্য দেশে শিক্ষাখাতে জিডিপি’র ৬ শতাংশ ও বাজেটের ২০ শতাংশ ব্যয় করে। কিন্তু আমাদের জিডিপি’র ২ শতাংশ ব্যয় হলেও বাজেটের ১০ শতাংশ করতে পারিনি। তিনি বলেন, কেবল লেখাপড়ার মান বাড়ালেই হবে না। শিক্ষার্থীদের ভালো মানুষ করে গড়ে তুলতে হবে। কেননা ভালো মানুষ না হলে জ্ঞানকে সঠিকভাবে কাজে লাগানো যায় না। প্রচলিত ও গতানুগতিক শিক্ষা নিয়ে আমূল পরিবর্তন সম্ভব নয়। নিজেদের আত্মবিশ্বাস থেকে নৈতিক কর্ম প্রেরণায় অনুপ্রাণিত হতে হবে।
নাহিদ বলেন, আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থায় ত্রুটি থাকতে পারে। তবে আমরা চেষ্টা করছি শিক্ষার মান বিশ্বমানে উন্নীত করার। এখন আর জ্ঞান আমদানি বা প্রযুক্তি আমদানি নয়। এখন আমাদের জ্ঞান রফতানি করতে হবে, প্রযুক্তি রফতানি করতে হবে।
তিনি আরও বলেন, আমাদের শিক্ষাব্যবস্থার একটি বড় ত্রুটি হচ্ছে ভালো শিক্ষকের অভাব। আমরা চেষ্টা করছি প্রশিক্ষণের মাধ্যমে ভালো শিক্ষক বৃদ্ধি করতে। সভাপতির বক্তব্যে প্রাইম ব্যাংকের চেয়ারম্যান আজম জে চৌধুরী বলেন, সিএসআর করতে ব্যাংকগুলোকে অনেক টাকা কর দিতে হয়। এজন্য ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও অনেকেই করতে চান না। তাই সিএসআরকে করের আওতামুক্ত করা হলে এ ধরনের উদ্যোগ আরও বাড়বে।
গত দশ বছরে এ ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে ২ হাজার ৭৭৯ শিক্ষার্থীকে বৃত্তি দেয়া হয়েছে।


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ