বিশেষ খবর

এক ভিসায়ই ২৬ দেশ!

ক্যাম্পাস ডেস্ক টিপস
img

এক ভিসায়ই আপনি সেনজেনভুক্ত ইউরোপের ২৬টি দেশ ভ্রমণ করতে পারেন। সেনজেনভুক্ত দেশগুলো হলো-অস্ট্রিয়া, বেলজিয়াম, চেক রিপাবলিক, ডেনমার্ক, এস্তোনিয়া, ফিনল্যান্ড, ফ্রান্স, জার্মানি, গ্রিস, হাঙ্গেরি, আইসল্যান্ড, ইতালি, লাটভিয়া, লিথুয়ানিয়া, লুক্সেমবার্গ, মাল্টা, নেদারল্যান্ডস, নরওয়ে, পোল্যান্ড, পর্তুগাল, সেøাভাকিয়া, সেøাভেনিয়া, স্পেন, সুইডেন, সুইজারল্যান্ড ও লিচেনস্টাইন। যেকোনো বাংলাদেশি ভ্রমণ কিংবা ব্যবসায়িক কাজে ছয় মাস মেয়াদি ভিসার জন্য আবেদন করতে পারেন। তবে যেকোনো দেশে একটানা ৯০ দিন কাটানো যাবে। ভিসা আবেদনের ক্ষেত্রে ঢাকায় সেনজেনভুক্ত যেকোনো একটি দেশের দূতাবাসে আবেদন করতে হবে।
দরকারি কাগজপত্র
ভিসার জন্য আবেদনকৃৃত দেশের দূতাবাসের ওয়েবসাইট থেকে ভিসা আবেদন ফরম ডাউনলোড করে ইংরেজি বড় হাতের অক্ষরে পূরণ করতে হবে। পাসপোর্টের যেসব পৃষ্ঠায় আপনার ব্যক্তিগত তথ্য আছে, সেসব পৃষ্ঠার স্পষ্ট ফটোকপি। সফর শেষেও পাসপোর্টের মেয়াদ অন্তত তিন মাস থাকতে হবে। রঙিন চশমা পরা কিংবা মাথা ঢাকা অবস্থায় ছবি তোলা যাবে না। পাসপোর্ট, পাসপোর্ট সাইজের দুই কপি রঙিন ছবি জমা দিতে হবে; তবে ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড সাদা হবে। নির্দিষ্ট পরিমাণ আবেদন প্রক্রিয়াকরণ ফি জমা দিতে হবে, যা অফেরতযোগ্য।
ভ্রমণ ভিসার ক্ষেত্রে
স্পন্সর থাকলে স্পন্সরের পাসপোর্ট বা আইডি কার্ডের মূল কপি ও ফটোকপি এবং বিগত তিন মাসের বেতনের প্রমাণপত্র আর স্পন্সর না থাকলে হোটেল বুকিংয়ের প্রমাণপত্র, ছুটির মেয়াদ উল্লেখ করে চাকরিদাতা প্রতিষ্ঠানের দেয়া সনদ, বিগত ছয় মাসের ব্যাংক অ্যাকাউন্টের বিবরণী ইত্যাদি।
ব্যবসায়িক ভিসার ক্ষেত্রে
আমন্ত্রণপত্র, আমন্ত্রণকারী ভ্রমণ ব্যয় বহন করলে তার প্রমাণপত্র, ব্যবসার রেজিস্ট্রেশন এবং ট্রেড লাইসেন্সের কপি, হোটেল বুকিংয়ের কাগজপত্রের কপি।
চিকিৎসার জন্য ভ্রমণের ক্ষেত্রে
বাংলাদেশি চিকিৎসকের দেয়া সনদ, বিদেশি যে চিকিৎসক বা হাসপাতালে দেখানো হবে সেখানকার প্রমাণপত্র, যেখানে চিকিৎসার আনুমানিক খরচ এবং সময়ের উল্লেখ থাকবে, রোগী বা রোগীর আত্মীয়ের সামর্থ্যরে প্রমাণপত্র এবং ব্যয় অগ্রিম প্রদান করা হয়েছে তার প্রমাণপত্র। শিশুরা ভ্রমণ করতে চাইলে আলাদা একটি ফরম পূরণ করে জমা দিতে হবে, সঙ্গে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে দেয়া ছুটির অনুমতিপত্র দিতে হবে।
বিশেষ দ্রষ্টব্য
ভিসা ইস্যু হওয়ার পর ভ্রমণের উদ্দেশ্য বা পরিকল্পনায় পরিবর্তন আনা যাবে না। সব কাগজপত্রের ফটোকপি ও মূলকপি প্রদর্শন করতে হবে। সব কাগজপত্র ইংরেজি বা সংশ্লিষ্ট দেশের ভাষায় অনূদিত হতে হবে। ভিসা আবেদন কিংবা যেকোনো তথ্যের জন্য সেনজেনভুক্ত দেশগুলোর দূতাবাসে যোগাযোগ করতে পারেন-
ফ্রান্স দূতাবাস
বাড়ি-১৮, সড়ক-১০৮, গুলশান-২, ঢাকা। 
ফোনঃ ৮৮১৩৮১১৪
স্পেন দূতাবাস
১২ কামাল আতাতুর্ক এভিনিউ গুলশান-২, ঢাকা।
ফোনঃ ৮৮৩১৩১৩
সুইজারল্যান্ড দূতাবাস
বীর বিক্রম মেজর হাফিজ সড়ক বাড়ি-৩১/বি, সড়ক-১৮, বনানী, ঢাকা। ফোনঃ ৮৮১২৮৭৪-৬
সুইডেন দূতাবাস
বাড়ি-১, সড়ক-৫১, গুলশান-২ ঢাকা। 
ফোনঃ ৮৮৩৩১৪৮
জার্মান দূতাবাস
১৭৮ গুলশান এভিনিউ, গুলশান-২ ঢাকা। 
ফোনঃ ৯৮৫৩৫২১৪


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ