বিশেষ খবর

দেশে স্কাউট আন্দোলন আরো জোরদার করতে হবে -প্রধানমন্ত্রী

ক্যাম্পাস ডেস্ক সংবাদ
img

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে স্কাউট আন্দোলন আরো সম্প্রসারণ ও জোরদার করতে সব বিভাগে স্কাউট প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্মাণে পদক্ষেপ নিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন।
সম্প্রতি গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অষ্টম জাতীয় কাব ক্যাম্পুরির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনকালে দেয়া ভাষণে তিনি এ নির্দেশ দেন। এ সময় তিনি বিজয়ী জাতির সন্তান হিসেবে ছোট্ট স্কাউটদের সব সময় মাথা উঁচু করে চলার আহ্বান জানান।
প্রধানমন্ত্রী কাব স্কাউটদের ভবিষ্যতে দেশ পরিচালনার কর্ণধার হিসেবে আখ্যায়িত করেন। তিনি বলেন, তোমরাই তো একদিন মন্ত্রী হবে, প্রধানমন্ত্রী হবে, সচিব হবে, বিজ্ঞানী হবে, দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। আমরা তো বুড়ো হয়ে গেছি। আমি তো এখন বুড়ো দাদু। দেশের ভবিষ্যৎ হচ্ছ তোমরা, কাব স্কাউটরা। তোমাদের হাতেই তো দেশকে রেখে যাব।
এর আগে গাজীপুরের মৌচাকে জাতীয় স্কাউটিং প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে ছয় দিনব্যাপী এই কাব ক্যাম্পুরি শুরু হয়েছে। এতে দেশের সব উপজেলা থেকে আট হাজার কাব স্কাউট ও কর্মকর্তারা যোগ দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করলেন। গণভবনে প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ১০ অঞ্চল থেকে নির্বাচিত ৭১ জন ছোট্ট স্কাউট তথা কাব স্কাউটকে ‘শাপলা কাব অ্যাওয়ার্ড’ প্রদান করেন।
শেখ হাসিনা তাঁর ভাষণে স্কাউট আন্দোলনকে জোরদার করতে তাঁর সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের উল্লেখ করে বলেন, বাংলাদেশে স্কাউট আন্দোলন জোরদার করতে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় ‘কাবিং সম্প্রসারণ ও বাস্তবায়ন’ এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ‘হিউম্যান রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট থ্রো স্কাউটিং’ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। মেয়েদের জন্য পৃথক ডরমেটরি নির্মাণ, মৌচাক স্কাউট প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের মিলনায়তন সম্প্রসারণ, স্কাউটসের ২৪তম এশিয়া প্যাসিফিক কনফারেন্স আয়োজনে অর্থ বরাদ্দ এবং চট্টগ্রাম, খুলনা, বগুড়া, সিরাজগঞ্জ ও পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জে স্কাউট প্রশিক্ষণ ও ক্যাম্প সাইট নির্মাণে জমি দেয়া হয়েছে। মৌচাক ন্যাশনাল স্কাউট ট্রেনিং সেন্টারের কর্মকা- স্বচ্ছন্দে পরিচালনার জন্য বন বিভাগের ৯৫ একর জমি ব্যবহারেরও অনুমতি দেয়া হয়েছে।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এদিন গণভবনে স্কাউট আন্দোলনের শতবর্ষ উপলক্ষে ডাক টিকিট অবমুক্ত করেন। এ সময় তিনি মৌচাকের ক্যাম্পুরিতে ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে অনেকের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে সরাসরি শুভেচ্ছা ও কুশলবিনিময় করেন।
মৌচাকের অনুষ্ঠানস্থলে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি, গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এস এম আলম প্রমুখ।


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ