বিশেষ খবর

ক্যাম্পাস পরিচালিত ফ্রি সেমিনার How to Control Anger

ক্যাম্পাস ডেস্ক ক্যাম্পাস’র অনুষ্ঠান
img

গত ৮ মার্চ অনুষ্ঠিত হয় ক্যাম্পাস পরিচালিত ফ্রি সেমিনার অন প্রোএকটিভ এন্ড পজিটিভ এটিচিউড এর ২৮তম পর্ব। ক্যাম্পাস অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত উক্ত সেমিনারের বিষয় ছিল How to Control Anger অর্থাৎ কীভাবে রাগ নিয়ন্ত্রণ করবেন। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস পত্রিকার সম্পাদক এবং ক্যাম্পাস সোস্যাল ডেভেলপমেন্ট সেন্টার (সিএসডিসি) এর মহাসচিব এম হেলালের সঞ্চালনায় উক্ত সেমিনারে মূল বক্তা ছিলেন প্রোএকটিভ এটিচিউডের ক্যারিশমেটিক উপস্থাপক ড. আলমাসুর রহমান।
ড. আলমাসুর রহমান
প্রোএকটিভ এটিচিউড কনসেপ্টের প্রবক্তা ড. আলমাসুর রহমান বলেন রাগটা আসলে কী? এর সহজ উত্তর হচ্ছে রাগ মানুষের মনের অত্যন্ত ক্ষতিকর আবেগ। এর ফল সর্বক্ষেত্রে খারাপ ছাড়া কখনো ভালো হয় না। রাগ করেন কেন, কাউকে এ প্রশ্ন করলে বলে রাগ এসে যায়। কথাটা ঠিক নয়; রাগ কখনো আসে না, রাগকে আপনি নিজেই নিয়ে আসেন; আপনিই রাগের স্রষ্টা।
ড. আলমাস বলেন কেউ আপনার সাথে খারাপ ব্যবহার করল, এটা তার চারিত্রিক দুর্বলতা। এর জবাবে আপনিও যদি খারাপ ব্যবহার করেন, রাগন্বিত হন তাহলেতো তার আর আপনার মধ্যে কোনো পার্থক্য থাকল না। যাদের বুদ্ধি নাই, বিবেচনা নাই অর্থাৎ বোকা বা সাধারণরাই রাগ করে। আপনি যদি সাধারণের ওপরের লেভেলে থাকতে চান, তাহলে রাগ করা যাবে না। আপনি সৃষ্টির সেরা, তাই অন্যের সাথে রাগ দেখিয়ে আপনার ব্যক্তিত্বকে খাটো করবেন না। মনে রাখবেন যিনি নিজের অবস্থানকে অন্যের ওপরে দেখতে চান, তাকে রাগ নিয়ন্ত্রণ করতেই হবে। পৃথিবীতে কেউ কাউকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না, শুধু নিজেই নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। তাই অন্যের কথায় বা কাজে রাগ না করে নিজকেই নিয়ন্ত্রণ করতে হবে; তাহলে যেকোনো জটিল পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে যাবে অনায়াসে।
ড. আলমাসুর রহমান বলেন নবী-রাসূল বা মহামানবগণ কখনো রাগ করতেন না; তাঁরা সর্বক্ষণ রাগ নিয়ন্ত্রণে রাখতেন যুক্তি ও বুদ্ধি-বিবেচনায়। হাদিসে আছে যে আপনার সাথে ভালো ব্যবহার করে, তার সাথেই আপনি ভালো ব্যবহার করবেন এটি নৈতিকতা নয়; নৈতিকতা হচ্ছে আপনার সাথে ভালো ব্যবহার করুক বা না করুক, আপনি সবার সাথে ভালো ব্যবহার করবেন। নবী করিম (দঃ) বলেছেন সে পালোয়ান নয়, যে অন্যকে হারায়; বরং সে-ই প্রকৃত পালোয়ান, যে রাগকে হারাতে পারে।
ড. আলমাস বলেন রাগ এবং রোগ পরস্পর যুক্ত। রাগ করলে শরীরে নেগেটিভ এনার্জি তৈরি হয়, যা অনেক ঘাতক ব্যাধির কারণ। রাগের কারণে শরীরে স্ট্রেস বা চাপ সৃষ্টি হয়। এগুলো বের করে দিতে না পারলে মানুষের মেন্টাল প্রেসার বেড়ে যায়। এ প্রেসার থেকে ডায়বেটিস, ক্যান্সার, হৃদরোগসহ বিভিন্ন জটিল রোগের সৃষ্টি হয়। গবেষণায় দেখা গেছে রাগ করে তা চেপে রাখলে ক্যান্সারের সম্ভাবনা ৭০% বেড়ে যায়। রাগ নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারলে এসব মারাত্মক ব্যাধির হাত থেকে রক্ষা পাওয়া যায়। তাই নিজের স্বার্থে, নিজের শারীরিক সুস্থতার স্বার্থে রাগকে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। ড. আলমাসুর রহমান বলেন মানুষের জীবনে যা কিছু ঘটে, তা প্রথমে আসে চিন্তায়; চিন্তা থেকে কাজে। চিন্তা পজিটিভ বা সুন্দর হলে জীবনের লক্ষ্য অর্জিত হবে; আর চিন্তা যদি ইতিবাচক না হয়, তাহলে যেকোনো সময় সে বিভ্রান্ত হতে পারে, বিপথগামী হতে পারে।
ড. আলমাস আরও বলেন মানুষ যা করে তার ৯৫ ভাগই অভ্যাসের ফল; অভ্যাসের সমষ্টি হলো মানুষের চরিত্র। কোনো কিছু নষ্ট হলে বা চুরি হলে সেটি হবে Something is lost, কিন্তু চরিত্র নষ্ট হলে তা হবে Everything is lost. তাই চরিত্র নষ্ট হতে দেয়া যাবে না; ভালো চরিত্রের অধিকারী হতে হবে। Good habit is hard to build, but bad habit is easy to grow.
এম হেলাল
সেমিনারের সঞ্চালক বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস পত্রিকার সম্পাদক এবং সিএসডিসি’র মহাসচিব এম হেলাল বলেন, Power এর নাম হচ্ছে Proactive Attitude। আমরা স্বর্গ ও নরকের মধ্যে কোন্ দিকে গমন করছি, তা নির্ভর করে Attitude এর ওপর। Attitude Positive হলে স্বর্গের দিকে যাব; আর Attitude Negative or Reactive হলে নরকের দিকে যাব। তাই আমাদেরকেই ঠিক করতে হবে আমরা কোন্ দিকে যেতে চাই। তিনি বলেন ক্যাম্পাস’র বহুমুখী কর্মসূচির মধ্যে প্রোএকটিভ এন্ড পজিটিভ এটিচিউড আন্দোলন একটি আকর্ষণীয় ও ফলপ্রসূ কর্মসূচি। এর মাধ্যমে নেতিবাচক চিন্তাধারা দূর করে কীভাবে জয়ী হওয়া যায়, সেরা হওয়া যায় সে সম্পর্কে আলোকপাত করা হয়। এক ঘন্টার এ সেশনে অংশগ্রহণকারীগণ উপলব্ধি করতে পারেন তারা একএকজন পরিবর্তিত মানুষ, নতুন ডায়নামিক মানুষ।
ক্যাম্পাস’র পরবর্তী প্রোএকটিভ সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে ২১ জুলাই বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টায়। সেমিনারের বিষয় Happy Marriage Life, Husband-Wife Relationship.


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ