বিশেষ খবর

বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে প্রতিবাদের ঝড় শিক্ষক হত্যার প্রতিবাদে উত্তাল রাবি

ক্যাম্পাস ডেস্ক সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়
img

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ইংরেজি বিভাগের শিক্ষক প্রফেসর এএফএম রেজাউল করিম সিদ্দিকীকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় প্রতিবাদমুখর হয়ে উঠেছে ক্যাম্পাস।
২৩ এপ্রিল হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে মিছিল ও সমাবেশ করেন রাবি’র শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। এ সময় ক্লাস বর্জন করেন তারা।
এর আগে রাজশাহীর শালবাগান এলাকায় নিজ বাসা থেকে একটু দূরে রেজাউল করিমকে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। প্রতিবাদে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়ক অবরোধ করেন শিক্ষার্থীরা। তারা জড়িতদের দ্রুত চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনতে বিভিন্ন স্লোগান দেন। এতে ওই সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ইংরেজি বিভাগের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন বিভাগের শিক্ষার্থীরা। মিছিলটি ক্যাম্পাস প্রদিক্ষণ করে সিনেট ভবনের সামনে গিয়ে শেষ হয়।
এছাড়া, সিনেটর ভবনের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশ করে রাবি শিক্ষক সমিতি। সমাবেশ থেকে দুইদিন ক্লাস বর্জনের ঘোষণা দেয়া হয়।
জানা যায়, বাসা থেকে বের হয়ে কিছুটা পথ এগুতেই গলির মধ্যে দুর্বৃত্তরা তাকে কুপিয়ে হত্যা করে। প্রফেসর রেজাউল করিমের গ্রামের বাড়ি রাজশাহীর বাগামারার দরগামারিড়ায়। তিনি শালবাগান এলাকার ভাড়া বাসায় থাকতেন।
রাজশাহী মহানগর পুলিশ কমিশনার মোহাম্মাদ শামসুদ্দিন বলেন, হামলার ধরন ও আলামত দেখে মনে হয়েছে জঙ্গি সংগঠন এই হামলায় জড়িত। আমরা বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখছি। হত্যার মোটিভ উদঘাটন এবং জড়িতদের চিহ্নিত করতে সিআইডি ও সিবিআই একসঙ্গে কাজ করছে।
শিক্ষক হত্যার প্রতিবাদে দু’দিনের ধর্মঘট রাবি শিক্ষক সমিতির রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) ইংরেজি বিভাগের শিক্ষক প্রফেসর এএফএম রেজাউল করিম সিদ্দিকী হত্যার প্রতিবাদ ও জড়িতদের গ্রেফতার দাবিতে দু’দিন ধর্মঘটের ডাক দেয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতি।
রাবি শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর শাহ আজম শান্তনু জানান, শিক্ষক সমিতির জরুরি সাধারণ সভায় এ কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।
ধর্মঘট চলাকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব ধরনের ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ থাকবে। ধর্মঘটের পাশাপাশি এ দু’দিন রাজশাহী শহর ও ক্যাম্পাসে শিক্ষক সমিতির পক্ষ থেকে প্রতিবাদ সমাবেশ করা হবে।
এর আগে দেশের সব সরকারি-বেসরকারি ও স্বায়ত্ত্বশাসিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্বতঃস্ফূর্ত ছাত্র ধর্মঘট পালনের আহ্বান জানায় বিভাগের শিক্ষার্থীরা।
খুবি শিক্ষক সমিতির তীব্র নিন্দা খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. আহমেদ আহসানুজ্জামান ও সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. মোঃ সারওয়ার জাহান রাবি শিক্ষক হত্যার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। এক বিবৃতিতে বলা হয়, জাতির শ্রেষ্ঠ সম্পদ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষককে তাঁর প্রিয় কর্মস্থল বিশ্ববিদ্যালয়ে যাবার পথে দিবালোকে এভাবে হত্যার ঘটনায় আমরা বিস্মিত হয়েছি। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিকল্পিতভাবে শিক্ষক হত্যার ঘটনা একাত্তরের বুদ্ধিজীবীদের হত্যার নীল নকশার কথা স্মরণ করিয়ে দেয়।
নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজী বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক এ.এফ.এম রেজাউল করিম সিদ্দিকী হত্যার প্রতিবাদে এবং অপরাধীদের দ্রুত গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির ব্যানারে মানববন্ধন করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী এবং কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর এ.এম.এম.শামসুর রহমান, রেজিস্ট্রার (দায়িত্ব প্রাপ্ত) মোঃ ফজলুল কাদের চৌধুরী ছাড়াও সাধারণ শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। উক্ত মানববন্ধনে বক্তারা হত্যা কারীদের সনাক্ত করে দ্রুতবিচারের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।
বাকৃবিতে মানববন্ধন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) অধ্যাপক ড. এএফএম রেজাউল করিম সিদ্দিকীকে হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (বাকৃবি) শিক্ষক সমিতি। বাকৃবি শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. মোঃ আবুল হাশেমের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন কৌলিতত্ত্ব ও উদ্ভিদ প্রজনন বিভাগের অধ্যাপক ড. মোঃ শাহ্-ই-আলম ও বাকৃবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মোঃ ছোলায়মান আলী ফকির। মানববন্ধনে অধ্যাপক ড. মোঃ ছোলায়মান আলী ফকির বলেন, রাবিতে রেজাউল করিম সিদ্দিকীর মতো আগেও তিন শিক্ষককে হত্যা করা হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে আমরা কেউই নিরাপদ নই। আমরা এই হত্যায় জড়িতদের দ্রুত বিচারের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি।
কুবিতে মানববন্ধন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ড. এএফএম রেজাউল করিম সিদ্দিকীকে হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় (কুবি) শিক্ষক সমিতি। কুবি’র প্রশাসনিক ভবনের সামনে এ মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করেন শিক্ষকরা।
মানববন্ধনে বক্তারা এ হত্যাকান্ডের তীব্র নিন্দা জানিয়ে হত্যাকারীদের চিহ্নিত করে দ্রুত বিচারের দাবি জানান। মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন কুবি’র উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আলী আশরাফ, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহিত উল আলম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক ড. কৃষ্ণ ব্যানার্জি, কুবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি আইনুল হকসহ বিভিন্ন অনুষদের ডিন ও অন্যান্য বিভাগের শিক্ষকরা।


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ