বিশেষ খবর

আনন্দঘন পরিবেশে নোবিপ্রবি প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী

ক্যাম্পাস ডেস্ক সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়

নানা আয়োজনের মধ্যদিয়ে অত্যন্ত উৎসবমুখর পরিবেশে ১৫ জুলাই নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ২০১৬ উদযাপন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে ক্যাম্পাসে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। ক্যাম্পাসকে সাজানো হয় মনোরম পরিবেশে। বিশ্ববিদ্যালয়ের হলসহ একাডেমিক ও প্রশাসনিক ভবনে আলোকসজ্জা করা হয়। গুরুত্বপূর্ণ ভবনসমূহে ব্যানার ও ফেস্টুন টাঙানো হয়। এতে করে বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বত্রই উৎসবের আমেজ বিরাজ করে।
অন্যান্য অনুষ্ঠানের মধ্যে ছিল উদ্বোধনী ঘোষণা, আনন্দ শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভা। প্রশাসনিক ভবনের সামনে থেকে এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। উপাচার্য প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামান ও স্থানীয় সাংসদ একরামুল করিম চৌধুরী সমবেত জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী সকলে সম্মিলিতভাবে অংশগ্রহণ করে। অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে ক্যাপ ও টি-শার্ট বিতরণ করা হয়েছে।
উপাচার্য প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামানের সভাপতিত্বে এবং রেজিস্ট্রার প্রফেসর মমিনুল হকের পরিচালনায় এতে প্রধান অতিথি হিসেবে একরামুল করিম চৌধুরী, মাননীয় সাংসদ নোয়াখালী-৪ ও সম্মানিত সদস্য রিজেন্ট বোর্ড, নোবিপ্রবি, বিশেষ অতিথি হিসেবে- মামুনুর রশীদ কিরণ, সাংসদ, নোয়াখালী-৩ ও সম্মানিত সদস্য, রিজেন্ট বোর্ড ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ এ এইচ এম খায়রুল আনম চৌধুরী সেলিম উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানের শুরুতে রেজিস্ট্রার প্রফেসর মোঃ মমিনুল হক বলেন, নানা সীমাবদ্ধতা থাকা সত্ত্বেও অত্যন্ত সুষ্ঠুভাবে নোবিপ্রবির একাডেমিক ও ভৌতঅবকাঠামোগত সর্বাঙ্গীন কার্যক্রম এগিয়ে চলছে। এখানকার শিক্ষার্থীরা মেধাবী। এ বিশ্ববিদ্যালয়েরই প্রাক্তন বিশ জন ছাত্র আজ এ বিশ্ববিদ্যালয়ের গর্বিত শিক্ষক।
উন্নয়ন কার্যক্রম নিয়ে তিনি বলেন, নভেম্বরের মধ্যে চলমান নির্মাণ কার্যক্রম সম্পন্ন হবে। এসময় তিনি স্থানীয় সাংসদ একরামুল করিম চৌধুরীর ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, তিনি (সাংসদ) নোবিপ্রবি পরিবারের অভিভাবক। আমাদের ডাকে তিনি সবসময় ছুটে আসেন। আমরা এ জন্য তার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। এছাড়া তিনি মাননীয় উপাচার্যের গতিশীল নেতৃত্বে নোবিপ্রবিকে প্রাচ্যের অক্সফোর্ড ক্যামব্রিজের আদলে গড়ে তোলার স্বপ্ন বাস্তবায়নে বিশ্ববিদ্যলয়ের সকল ছাত্র-শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীর প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানান।
প্রধান অতিথির বক্তৃতায় একরামুল করিম চৌধুরী এমপি বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার প্রতি অশেষ কৃতজ্ঞতা যে তিনি এ অজপাঁড়াগায়ে একটি বিশ্বমানের বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেছেন। ফলে এ অঞ্চলের শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ লাভ করেছে।
সভাপতির বক্তৃতায় উপাচার্য প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামান বলেন, যেকোনো বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিনটি স্মরণীয়। এটা বিশ্ববিদ্যালয়ের এগিয়ে চলার পথের মুকুট। নানা চড়াই-উতরাই পেরিয়ে আজ নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় একটি বিশ্বমানের বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে এগিয়ে চলছে। আমি আশা করি এ বিশ্ববিদ্যালয় একদিন প্রাচ্যের অক্সফোর্ড হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হবে।


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ