অশুভ শক্তি এবং অমঙ্গল, সাম্প্রদায়িকতা আর জঙ্গিবাদ নির্মূলে অনেক আলো জ্বালতে হবে মনের অন্ধকারে’ " /> বাংলা নববর্ষের উৎসবে রঙ্গিন বিশ্ববিদ্যালয়
বিশেষ খবর

বাংলা নববর্ষের উৎসবে রঙ্গিন বিশ্ববিদ্যালয়

ক্যাম্পাস ডেস্ক প্রতিবেদন
img

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

অশুভ শক্তি এবং অমঙ্গল, সাম্প্রদায়িকতা আর জঙ্গিবাদ নির্মূলে অনেক আলো জ্বালতে হবে মনের অন্ধকারেপ্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে নববর্ষ আবাহনের বর্ণময় আকর্ষণ মঙ্গল শোভাযাত্রার উদ্বোধন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক। উপাচার্য বলেন, আজকের এই দিনে সম্মিলিতভাবে সংস্কৃতির শক্তি দিয়ে নির্মূল করতে হবে সাম্প্রদায়িকতা, জঙ্গিবাদ এবং সহিংসতাকে। সকালে বিশ্ববিদ্যালয় চারুকলা অনুষদ প্রাঙ্গণ থেকে উপাচার্যের নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত শোভাযাত্রায় বাংলাদেশ সরকারের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এমপি এবং বাংলাদেশে সফররত থাইল্যান্ডের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী উইরা রাজপুটচানাত অংশগ্রহণ করেন।  ধর্ম-বর্ণ  নির্বিশেষে সকল শ্রেণি পেশার মানুষের সম্মিলনে শাহবাগ মোড় হয়ে হোটেল রূপসী বাংলা থেকে টিএসসি হয়ে চারুকলায় এসে শোভাযাত্রা শেষ হয়।

প্রথমবারের মত মুক্তবুদ্ধির কণ্ঠরোধে রক্তাক্ত হাতেরপ্রতীকী কাঠামো উপস্থাপনায় মঙ্গল শোভাযাত্রায় নতুন মাত্রা এনে দিয়েছে। এছাড়া ছিল দশটি প্রতীকের কাঠামো যথা হাতি, ঘোড়া, বাঘ, মাছ, টেপা পুতুল, ছাগল এবং তিনটি পাখী কাকাতুয়া ও দুটি পায়রা।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনা ও বর্ণিল আয়োজনের মধ্য দিয়ে পালিত হয়েছে বর্ষবরণ ১৪২২। বাংলা নতুন এ বছরকে বরণ করতে সকালেই বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও চারুকলা বিভাগ কর্তৃক আয়োজিত মঙ্গল শোভাযাত্রা ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে। শোভাযাত্রায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মুহম্মদ মিজানউদ্দিন ও উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহানসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়াও সকাল থেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগ, সাংস্কৃতিক ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন শোভাযাত্রা, পান্তা-ইলিশ উৎসব, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ বিভিন্ন আয়োজনে মেতে উঠে হাজার হাজার শিক্ষার্থীরা।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

বর্ণাঢ্য আয়োজনে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে পহেলা বৈশাখ উদযাপন করা হয়েছে। সকাল থেকেই নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে পালিত হয়েছে বাঙালির চির ঐতিহ্যবাহী পহেলা বৈশাখ।

এনিয়ে সকাল থেকেই ক্যাম্পাসে ঢল নামে তরুণ-তরুণীদের। রঙ বেরঙের শাড়ি পরে হাজির হন তারা। সকালে পান্তা খেয়ে দিন শুরু করেন তারা। এরপর দিনভর চলেছে ছোটাছুটি, আনন্দ, হৈ-চৈ।

অন্যদিকে, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে নববর্ষের রাতেই ছাত্রলীগের দু-গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহজালাল হল ও শাহ আমানত হল শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে এ উত্তেজনা দেখা দেয়। এসময় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়েছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ক্যাম্পাস শান্ত রয়েছে।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে মহাসাড়ম্বরে পহেলা বৈশাখ পালিত হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে তিন দিনব্যাপী নানা ধরনের কর্মসূচি আয়োজন করেছে।

সকালে উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলামের নেতৃৃত্বে প্রশাসনের উদ্যোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরাতন কলাভবন চত্বর থেকে মঙ্গল শোভাযাত্রাবের হয়ে ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে গিয়ে শেষ হয়। শোভাযাত্রায় উপাচার্যের সঙ্গে প্রো-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আবুল হোসেন, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আবুল খায়ের, বিভিন্ন অনুষদের ডিন, রেজিস্ট্রার, হল প্রভোস্ট, প্রক্টর, বিভাগীয় সভাপতি ও অন্যান্য ছাত্র-শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী, মহিলা ক্লাব, জাবি স্কুল ও কলেজের ছাত্র-শিক্ষকগণ অংশগ্রহণ করেন। মঙ্গল শোভাযাত্রা শেষে উপাচার্য  সকাল সাড়ে দশটায় ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র কর্তৃক কেন্দ্রীয় ক্যাফেটেরিয়া চত্বরে আয়োজিত তিন দিনব্যাপী বৈশাখী মেলার উদ্বোধন করেন।

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলা নববর্ষ ১৪২২ উদযাপনে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সবচেয়ে বড় বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা ও বৈশাখী মেলা উৎসবমুখর পরিবেশে উদযাপিত হয়। এ উপলক্ষে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে দুদিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করা হয়। পহেলা বৈশাখ সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান ক্যাম্পাসে প্রধান অতিথি হিসেবে বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে মেলার উদ্বোধন করেন। পরে ভাইস-চ্যান্সেলরের নেতৃত্বে নগরীর শিববাড়ী মোড় থেকে ময়লাপোতা মোড় হয়ে রয়্যাল চত্বর পর্যন্ত বাংলা নববর্ষের বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়। এছাড়া সকাল থেকে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠন এখানে অংশ নেয়। বিকেলে অনুষ্ঠিত হয় বিশ্ববিদ্যালয় মাঠে মেলা।

শাবিপ্রবি

বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শাবিপ্রবি) পালিত হয়েছে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ।

১৪ এপ্রিল বিশ্ববিদ্যালয় মুক্তমঞ্চ থেকে মঙ্গল শোভাযাত্রার মাধ্যমে বরণ করা হয় বাংলা নববর্ষকে। বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য প্রফেসর ড. আমিনুল হক ভূঁইয়ার নেতৃত্বে শোভাযাত্রায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অংশ নেয়। শোভাযাত্রাটি পুরো ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে পুনরায় মুক্ত মঞ্চে গিয়ে শেষ হয়। এছাড়া বর্ষবরণ উপলক্ষে ক্যাম্পাসে জমজমাট বৈশাখী মেলা, তৈলাক্ত বাঁশে আরোহণ প্রতিযোগিতা, হাডুডু খেলা, বেলুন ফোটানা, সাপের খেলা, সাপ-বেজির লড়াই, সাইকেল চালানো প্রতিযোগিতা এবং ঘুড়ি উড়ানোসহ বিভিন্ন কর্মসূচিও রয়েছে।

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে উদ্যাপিত হয়েছে বাংলা নববর্ষ ১৪২২। বাংলা নতুন বর্ষকে বরণ করে নিতে শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারী সকলে সেজেছিল বৈশাখী সাজে। 

বিশ্ববিদ্যালয় পক্ষ থেকে আয়োজন করা হয় বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা। শোভাযাত্রাটি সকালে ভিসি প্রফেসর ড. আবদুল হাকিম সরকারের নেতৃত্বে শুরু হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন ভবনের  সামনে থেকে শোভযাত্রাটি শুরু হয়ে  প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে প্রশাসন ভবনের সামনে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যের মাধ্যমে শেষ হয়। ছাত্রউপদেষ্টা প্রফেসর ড. আনোয়ার হোসেনের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ভিসি প্রফেসর ড. আবদুল হাকিম সরকার, প্রো-ভিসি প্রফেসর ড. শাহিনুর রহমান।

মাভাবিপ্রবি

মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে বর্ণিল আয়োজনে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে মঙ্গলবার বাঙ্গালীর প্রাণের উৎসব বাংলা নববর্ষ উদযাপন করা হয়েছে।

কর্মসূচির মধ্যে ছিল আনন্দ র‌্যালী, মুক্তমঞ্চ সংলগ্ন মাঠে পান্তা আয়োজন, ছাত্রী এবং শিক্ষিকাদের মধ্যে হাঁড়িভাঙ্গা, ছাত্রদের মধ্যে মোরগ লড়াই, শিক্ষকদের জন্য চাচা আপন জান বাঁচা, শিক্ষক এবং কর্মকর্তাদের মধ্যে রশিটানাটানি, কর্মচারীদের মধ্যে কাবাডি খেলা, ছাত্র-শিক্ষকদের মধ্যে রম্য বিতর্ক লাভে লাভ নেই শুধুই লসছাত্র-ছাত্রীদের পরিবেশনায় নৃত্য ও সঙ্গীত, নাটক পান্তা আকালি ও লালন ভাবনগর লোকজ সংগীত।

কর্মসূচিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ আলাউদ্দিন, বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ও প্রক্টর ড. মোহাম্মদ খাদেমুল ইসলাম, ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ডিন ড. মোহাম্মদ মতিউর রহমানসহ শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও ছাত্র-ছাত্রীরা উপস্থিত ছিলেন।

হাবিপ্রবি

হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যাপক উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে বাংলা নববর্ষ ১৪২২ পালিত হয়েছে। সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর মোঃ রুহুল আমিন-এর নেতৃত্বে এক বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে। এসময় ঢাক-ঢোল, বাঁশি আর একতারার সুরে নেচে-গেয়ে তারুণ্যের উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে ছাত্র-ছাত্রীরা। শোভাযাত্রায় অংশ গ্রহণ করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মোঃ আনিস খান, পোস্টগ্র্যাজুয়েট স্টাডিজ অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. বলরাম রায়, রেজিস্ট্রার মোঃ নজিবুর রহমান, ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা শাখার পরিচালক প্রফেসর ড. মোঃ শাহাদৎ হোসেন খান, পরিকল্পনা উন্নয়ন ও ওয়ার্কশ শাখার পরিচালক প্রফেসর ড. উত্তম কুমার মজুমদার, প্রফেসর ডাঃ মোঃ ফজলুল হকসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ। শোভাযাত্রা শেষে ভাইস-চ্যান্সেলর নববর্ষ উপলক্ষে বিভিন্ন স্টল পরিদর্শন করেন।

কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়

১৪ এপ্রিল পহেলা বৈশাখ (বাংলা নববর্ষ) ১৪২২ উদ্যাপনের লক্ষ্যে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। সকালে নববর্ষ উদ্যাপনে প্রধান আকর্ষণ হিসেবে শুরু হয় মঙ্গল শোভাযাত্রা। মঙ্গল শোভাযাত্রাটি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস হতে ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়কে গিয়ে আবার বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ফিরে আসে। এতে নেতৃত্ব দেন জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহীত উল আলম। পায়রা অবমুক্ত করে উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহীত উল আলম মঙ্গল শোভাযাত্রার উদ্বোধন ঘোষণা করেন। এর আগে চৈত্র সংক্রান্তি উপলক্ষে ১৩ এপ্রিল সন্ধ্যায় চুরুলিয়া মঞ্চেসাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং রাতে ফানুস উৎসব ও আতসবাজি অনুষ্ঠিত হয়।

পবিপ্রবি

বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যে দিয়ে পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলা নববর্ষ ১৪২২ পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানের মধ্যে ছিল শোভাযাত্রা, চিত্র প্রদর্শণী, হাড়ি ভাঙ্গা প্রতিযোগিতা, বৈশাখী মেলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের সম্মুখ থেকে ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ শামসুদ্দীনের নেতৃত্বে এক শোভাযাত্রা বের হয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ও দুমকি উপজেলা শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে এসে শেষ হয়। শোভাযাত্রায় বাঙ্গালি সংস্কৃতির বিভিন্ন উপকরণ ঢেঁকি, কুলা, তবলা, পালকি, মাছসহ বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদ ও সাংস্কৃতিক সংগঠন এবং স্থানীয় বাউল শিল্পীরা প্রভাত সংগীত, শুভ নববর্ষের গান এবং লালনের গান পরিবেশন করে। নববর্ষ উপলক্ষে কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে দুদিনব্যাপী বৈশাখী মেলার আয়োজন করা হয়।

নোবিপ্রবি

মঙ্গল শোভাযাত্রা, দিনব্যাপী মেলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (নোবিপ্রবি) উদযাপন করা হলো বাংলা নববর্ষ-১৪২২।

সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে থেকে মঙ্গল শোভাযাত্রা শুরু হয়। এটি বিশ্ববিদ্যালয় ও এর আশপাশের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে মেলাস্থলে এসে শেষ হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত ভিসি ড. আবুল হোসেন  দিনব্যাপী মেলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন। এসময় তিনি মেলার বিভিন্ন স্টল পরিদর্শন করেন।

বেরোবি

নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে (বেরোবি) উদযাপিত হচ্ছে বাংলা নববর্ষ-১৪২২।

সকালে কর্মসূচির উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ কে এম নূর-উন-নবী।

নববর্ষ উপলক্ষে সকালে ক্যাম্পাসে বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি ক্যাম্পাস থেকে বের হয়ে ঢাকা-রংপুর মহাসড়ক ঘুরে নগরীর লালবাগ বাজার হয়ে ফের ক্যাম্পাসে এসে শেষ হয়। শোভাযাত্রায় বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অংশ নেন।

এদিকে বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে ক্যাম্পাসে বৈশাখী মেলার আয়োজন করা হয়েছে। মেলায় বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা স্টল সাজিয়ে বাঙালি ঐতিহ্যের নানা চিত্র তুলে ধরেছেন। উপাচার্য ড. এ কে এম নূর-উন-নবী বিভিন্ন স্টল পরিদর্শন করেছেন।

চুয়েট

চলো উৎসবে মাতিসেøাগানে আয়োজিত চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট) এর অনুষ্ঠানমালার মধ্যে ছিল নববর্ষের আনন্দ র‌্যালি, পান্তা উৎসব, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান প্রভৃতি।

অনুষ্ঠানমালায় প্রধান অতিথি ছিলেন চুয়েটর ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ জাহাঙ্গীর আলম। বিশেষ অতিথি ছিলেন চুয়েটের প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর মোহাম্মদ রফিকুল আলম। সভাপতিত্ব করেন চুয়েটর স্টাফ ওয়েলফেয়ার কমিটির সভাপতি প্রফেসর ড. মোঃ আব্দুর রশীদ। এ সময় স্থাপত্য ও পরিকল্পনা অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মোঃ হযরত আলী, রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) প্রফেসর ড. ফারুক-উজ-জামান চৌধুরী, ছাত্রকল্যাণ পরিচালক প্রফেসর ড. আশুতোষ সাহাসহ চুয়েটের বিপুল সংখ্যক শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন।

কুয়েট

খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুয়েট) পহেলা বৈশাখ-১৪২২ উৎসবমুখর পরিবেশে দিনব্যাপী জাঁকজমকপূর্ণ নানাবিধ কর্মসূচি পালনের মাধ্যমে উদ্যাপন করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগে আয়োজিত কর্মসূচির মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে চলেছে রকমারী আয়োজনে সাজানো বৈশাখী মেলা। বৈশাখী মেলায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল হলের অংশগ্রহণে খাঁটি দেশীয় খড়মাটির কুঠি বানিয়ে দেশীয় ঐতিহ্যের পান্তা ইলিশ, গ্রাম বাংলার ষড়ঋতুর আকর্ষণীয় বিভিন্ন আয়োজন, দেশীয় পিঠা তৈরি ও প্রদর্শনী ইত্যাদি নানাবিধ বর্ণিল আয়োজন করা হয়। ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আলমগীর স্টলগুলো ঘুরে দেখেন এবং দেশীয় বিভিন্ন খাবারের স্বাদ গ্রহণ করেন। বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড, ফেস্টুন, মুখোশসহ আরও অনেক আয়োজনে অডিটরিয়াম প্রাঙ্গণ থেকে শোভাযাত্রা শুরু হয়ে ফুলবাড়ীগেটসহ ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে অডিটরিয়ামের সম্মুখে এসে সমাপ্ত হয়।

সিভাসু

বাঙ্গালীর প্রাণের উৎসবে শামিল হতে চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি এন্ড এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ে শুরু হয় নানা বৈশাখি আয়োজন।

আগেরদিন রাত থেকেই শুরু হয়েছিল বর্ষবরণের প্রস্তুতি। রাতে ছিল একদল তরুণের আগ্রহে বিশ্ববিদ্যালয়ের এলাকাজুড়ে আলপনা অঙ্কন। সকাল থেকেই ছিল অনুমোদিত স্টলের সাজসজ্জা। সকালে ছিল বৈশাখি আনন্দ শোভাযাত্রা। শোভাযাত্রায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রকল্যাণ পরিচালক ড. আলমগীর হোসেন। এছাড়া, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে আয়োজন করা হয় বৈশাখি মেলা। মেলায় বিভিন্ন অনুষদের শিক্ষার্থীদের অয়োজনে স্টল ছিল চোখে পড়ার মত।

এইউবি

এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ বাংলা নববর্ষ ১৪২২ কে স্বাগত জানিয়ে দিনব্যাপী কর্মসূচি পালন করেছে। সকালে পান্তা ইলিশ খাওয়ার মধ্য দিয়ে কর্মসূচি শুরু হয়। অনুষ্ঠানটি উদ্বোধন করেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. আবুল হাসান মুহাম্মদ সাদেক। এরপর ইউনিভার্সিটির রেজিস্ট্রার মহিউদ্দিন নুরুল আবসার এর সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভার আয়োজন করবে এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং ক্লাব। এ অনুষ্ঠানে উপাচার্য প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের নাতী বিশিষ্ট নজরুল সংগীত শিল্পী সুবর্ণ কাজী।

ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়

নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে বৈশাখ পার্বণ-১৪২২অনুষ্ঠিত হয়েছে।

অনুষ্ঠানমালার মধ্যে ছিল বাংলা নববর্ষকে ঘিরে আলপনা উৎসব, ফানুস ওড়ানো, মঙ্গল শোভাযাত্রা, পান্তা ইলিশ, পুঁথি পাঠ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

রাত ১২টা ১ মিনিটে আলপনা উৎসব উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে বর্ষবরণের এ অনুষ্ঠানের শুরু। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এম লুৎফর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে ছিলেন দেশবরেণ্য কথা সাহিত্যিক ও সাংবাদিক আনিসুল হক।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. এম গোলাম রহমান, পরিচালক স্টুডেন্ট অ্যাফেয়ার্স সৈয়দ মিজানুর রহমান রাজু ও রক্সি পেইন্টস্ লিমিটেডের নির্বাহী পরিচালক মোঃ শামসুজ্জামান প্রমুখ।

নর্থ-সাউথ ইউনিভার্সিটি

বাংলা নববর্ষকে বরণ করতে প্রতি বছরের মতো এবারও দেশীয় ইতিহাস ও ঐতিহ্যের অনুসরণে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করে নর্থ-সাউথ ইউনিভার্সিটি।

বিশ্ববিদ্যালয়টির সাংস্কৃতিক সংগঠনের আয়োজনে পহেলা বৈশাখের দিন বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বাউল গান, আলোচনা সভা, দেশের ইতিহাস ও ঐতিহ্য নিয়ে দিনব্যাপী অনুষ্ঠান পালিত হয়।

গত দুই সপ্তাহ ধরে এসব অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি নিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

নর্দান ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ

বৈশাখের প্রথম প্রহরে নর্দান  ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে এক বর্ণাঢ্য বৈশাখি শোভা-যাত্রা বের করে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক  কর্মকর্তা কর্মচারীদের অংশগ্রহনে জাঁক জমকপূর্ন এই শোভাযাত্রায়  শ্বাশত বাঙ্গালীর  ইতিহাস, ঐতিহ্য ও লোক সংস্কৃতি তুলে ধরা হয়।

শোভা-যাত্রা ছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গনে বৈশাখী মেলা, আলপনা উৎসব, পান্তা  ইলিশ উৎসব, মেহেদী ও আলতা উৎসব, দেশি ছবির প্রদর্শনী সহ বৈশাখী নাচ ও গানের আয়োজন করা হয়।

সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটি

পয়লা বৈশাখ ও বাংলা নববর্ষ-১৪২২ উপলক্ষে সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটির তেজগাঁওস্থ স্থায়ী ক্যাম্পাসে ১৬ এপ্রিল দিনব্যাপী বৈশাখী উৎসবের আয়োজন করা হয়।

উৎসবের উদ্বোধন করেন সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক আনোয়ার  হোসেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ হুমায়ুন কবীর চৌধুরী। উৎসবে সংগীত ব্যক্তিত্ব এস আই টুটুলকে সম্মাননা প্রদান করা হয়। তিনি উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন ইউনিভার্সিটি অব সাউথওয়েলস্ এর ইন্টারন্যাশনাল রিক্রুটমেন্ট অফিসার ডেভিড জয়েস, সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটির রেজিস্ট্রার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম, এনডিসি, পিএসসি, জি+ (অব:), সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটি ট্রাস্ট এর বোর্ড অব ট্রাস্টিজ এর চিফ কো-অর্ডিনেটর উইং কমান্ডার সৈয়দ আহমেদ কবীর, এফএডব্লিউসি, পিএসসি (অব:), বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যান, শিক্ষক, কর্মকর্তা ও শিক্ষার্থীরা। 

স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটি

সকাল থেকে স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের (এসইউবি) ছাত্রী অভিনেত্রী স্বাগতার উপস্থাপনায় শুরু হয় বাঙ্গালি  সাস্কৃতিক অনুষ্ঠান স্ট্যামফোর্ড ক্যাম্পাসে। স্ট্যামফোর্ডের সিদ্ধেশরী ক্যাম্পাসের অন্য অংশে তখন চলছিলো নাগরদোলা ও বৈশাখী মেলা। চলছিলো নতুন সাজে সেলফি উৎসবও। স্ট্যামফোর্ড ডিবেট ফোরামের প্রেসিডেন্ট আমিমুল হাসানের নেতৃত্বে বৈশাখী শোভাযাত্রাও বের করা হয়।

স্টেট ইউনিভার্সিটি

বাংলা নববর্ষ ১৪২২ উদযাপন উপলক্ষে স্টেট ইউনিভার্সিটিতে শোভাযাত্রা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। রাজধানীর ধানমন্ডির নিজস্ব ক্যাম্পাসে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। শোভাযাত্রায় উপস্থিত ছিলেন, স্টেট ইউনিভার্সিটির ভিসি প্রফেসর ড. ইফতেখার গণি চৌধুরী, রেজিস্ট্রার ইকরাম উদ দৌলা, বিজনেস বিভারগের ডিন ড. আশরাফুল ইসলাম চৌধুরী, ইংরেজি বিভাগের ডিরেক্টর এম এস হামিদুর রহমান, বিজনেজ বিভাগের ডিরেক্টর আলী আহসান প্রমুখ।


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ