বিশেষ খবর

শর্ত পূরণে ব্যর্থ বেসরকারি ভার্সিটির বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা

-শিক্ষামন্ত্রী

ক্যাম্পাস ডেস্ক শিক্ষা সংবাদ
img

যেসব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় নির্ধারিত শর্ত পূরণে ব্যর্থ হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাদেশের শর্ত না মেনে যারা শিক্ষার নামে ব্যবসা করছে তাঁদের হুঁশিয়ার করে দিয়ে তিনি বলেছেন, এভাবে তাঁরা আর বেশিদিন চলতে পারবে না। যাঁরা মুনাফার লক্ষ্য নিয়ে চলতে চান, তাঁদের জন্য আমরা সময় বেঁধে দিয়েছি। আইন অনুযায়ী তাঁরা বিশ্ববিদ্যালয় চালাতে না পারলে তাঁদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।
সম্প্রতি দেশের অন্যতম বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির (এনএসইউ) ১৮তম সমাবর্তনে চ্যান্সেলর ও রাষ্ট্রপতির প্রতিনিধি হিসেবে দেয়া বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী সরকারের এ কঠোর অবস্থানের কথা জানান। শিক্ষামন্ত্রী নর্থ সাউথের মানসম্পন্ন শিক্ষাদানে সন্তোষ প্রকাশ করে অন্যান্য বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের পিছিয়ে পড়ার বিষয়টি উদ্বেগের সঙ্গে তুলে ধরেন। তিনি বলেন, নর্থ সাউথ প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে আন্তর্জাতিক মানের শিক্ষা প্রসার ও উন্নয়নের মাধ্যমে জ্ঞানভিত্তিক আধুনিক সমাজ, সুশৃঙ্খল মানবসম্পদ তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে, যা ইতোমধ্যেই সকল মহলের দৃষ্টি আকর্ষণে সমর্থ হয়েছে। বসুন্ধরার নিজস্ব^ ক্যাম্পাসে বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে সমাবর্তনে নর্থ সাউথের স্নাতক ও স্নাতকোত্তর কোর্সে দুই হাজার ৩৮ জন শিক্ষার্থীকে ডিগ্রি প্রদান করা হয়। এ বছর দশ মেধাবী শিক্ষার্থীকে দেয়া হয় চ্যান্সেলর ও ভাইস চ্যান্সেলর স্বর্ণপদক। যেখানে এবার ছাত্রীদের সাফল্য নজর কেড়েছে সকলের। স্বর্ণপদক প্রাপ্ত ১০ মেধাবীর ৯ জনই ছাত্রী হওয়ায় ঘটনাকে দেশের নারী শিক্ষার অগ্রযাত্রার চিত্র হিসেবেও অভিহিত করেন অনুষ্ঠানে আসা শিক্ষামন্ত্রী থেকে শুরু করে দেশি-বিদেশি অতিথিরা।
সমাবর্তনের অনুষ্ঠানটি সরাসরি সম্প্রচার করে দেশের বেশ কয়েকটি বেসরকারি টেলিভিশন। শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ সমাবর্তনে সভাপতিত্ব করেন। সমাবর্তন বক্তা ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের সাউথওয়েস্টার্ন ওকলাহামা ইউনিভার্সিটির প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক র‌্যান্ডি বাটলার। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. এ কে আজাদ চৌধুরী। বক্তব্য রাখেন নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান বেনজীর আহমেদ ও উপাচার্য অধ্যাপক ড. আমিন ইউ সরকার। ছিলেন ট্রাস্টি বোর্ডের অন্যান্য সদস্য, বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ, বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভাগীয় প্রধান, শিক্ষক এবং ডিগ্রি অর্জনকারী ছাত্র-ছাত্রীরা। আরও ছিলেন বেশ কয়েকজন মন্ত্রী, কূটনীতিক এবং আন্তর্জাতিক সংস্থা প্রধান ও বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্যবৃন্দ।  শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, আমরা সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে কোনো পার্থক্য করি না। তারা সবাই আমাদের সন্তান ও জাতির ভবিষ্যৎ।
ডিগ্রিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, আপনাদের গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় শেষ হলো, কিন্তু আরেকটি অধ্যায় কর্মজীবন শুরু হতে যাচ্ছে।


আরো সংবাদ

শিশু ক্যাম্পাস

বিশেষ সংখ্যা

img img img

আর্কাইভ